“ওয়েবের অনেক নাটকীয় পরিবর্তন ঘটেছে। এর অনেক কিছুই কিন্তু আমরা প্রেডিক্ট করতে পারতাম না।”—টিম বার্নার্স-লি

ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব চালু হওয়ার ৩০ বছর পূর্তি উপলক্ষে গত ১২ মার্চ, ২০১৯ তারিখ লন্ডনের সায়েন্স মিউজিয়ামে বক্তা হিসেবে গিয়েছিলেন ওয়েবের জনক টিম বার্নার্স-লি।

সামনের ৩০ বছরে ওয়েবের অবস্থা কীরকম দাঁড়াতে পারে সেই প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “আসলে আমার মনে হয়, এভাবে ভেবেচিন্তে অনুমান করার কিছু নাই। কারণ গত ৩০ বছরের দিকে তাকালে দেখবেন যে এর মাঝে ওয়েবের অনেক নাটকীয় পরিবর্তন ঘটেছে। এর অনেক কিছুই কিন্তু আমরা প্রেডিক্ট করতে পারতাম না।” এরপর উইকিপিডিয়া ও অন্যান্য ব্লগ সাইটের উদাহরণ দিয়ে লি বলেন, “এসব চমৎকার জিনিস ছাড়াও যে সব বাজে জিনিসের উদ্ভব হয়েছে সেগুলি অবশ্য আমি প্রেডিক্ট করতে পারতাম না।”

রানিকে www আবিষ্কারে ব্যবহৃত ১৯৯০ সালের NeXTcube কম্পিউটারটি দেখাছেন মিউজিয়ামের কিউরেটর ড. টিলি ব্লিথ, পাশে দাঁড়িয়ে ওয়েবের জনক  স্যার টিম বার্নার্স-লি।

তবে বার্নার্স-লি মনে করেন, ওয়েবের একটা বড় অংশ যে একসময় কর্পোরেশনগুলি নিয়ন্ত্রণ করবে—সেই ভবিষ্যৎ সম্পর্কে অনেকেই সচেতন ছিলেন। তার সংগঠন ‘ওয়েব ফাউন্ডেশন’ ভবিষ্যতে ওয়েবের উন্নয়নকে গাইড করার জন্য কাজ করছে। ২০১৮ সালের শেষে চালু হয় তাদের নতুন প্রজেক্ট ‘কন্ট্রাক্ট ফর দ্য ওয়েব’। এর আওতায় তারা নির্দিষ্ট নীতিমালা মাফিক সরকার, ব্যবসায়ী ও রেগুলার ওয়েব ইউজারদের সাথে কাজ করবেন।

এক্ষেত্রে সরকারগুলিকে জনগণের প্রাইভেসির ব্যাপারে আরো গুরুত্ব দেওয়া এবং যেকোনো পরিস্থিতিতে ইন্টারনেট সুবিধা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানানো হবে। ইউজাররা যাতে কেবল নিষ্ক্রিয় ভোক্তা না থেকে আরো বেশি করে কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হিসাবে আত্মপ্রকাশ করতে পারেন সে সম্বন্ধে থাকবে প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা।

“ভবিষ্যতের ওয়েব কী রকম হতে পারে সেই প্রশ্ন না করে বরং আমাদের জানতে যাওয়া উচিত, আমরা ঠিক কোন ধরনের ওয়েব চাই”, বলেন টিম বার্নার্স-লি। “আমরা একটা মুক্ত ওয়েব চাই, যা কিনা একই সাথে রয়্যাল্টি-ফ্রি ও বৈষম্যমুক্ত। ‘কন্ট্র্যাক্ট ফর দ্য ওয়েব’ সেই আলোচনা ও প্রশ্ন করার কাজটিই করছে।”