ভয়েস ডিকটেশন ব্যবহার করে কথা বলার মাধ্যমে কোনো ম্যাসেজ লেখা নতুন কোনো ব্যাপার নয়। কিন্তু নতুন খবর হচ্ছে, নতুন এক আপডেটের মাধ্যমে গুগল এই ফিচারটিতে যুক্ত করেছে বাংলা ভাষাকেও।

ভয়েস টাইপিং সত্যি সত্যি টাইপ করার চাইতে তিনগুণ দ্রুততর। এই বিষয়টিকে মাথায় রেখে গুগল বাংলাসহ আরো ৩০টি নতুন ভাষায় ভয়েস টাইপিং নিয়ে এসেছে।

এর ফলে এক বিলিয়নেরও বেশি নতুন ভাষাভাষী ও জনগোষ্ঠীকে গুগলের এই ফিচারে অন্তর্ভুক্ত করা হল।

অর্থাৎ, এই আপডেটের ফলে অ্যান্ড্রয়েড এর জিবোর্ড, ভয়েস সার্চ ইত্যাদিতে গুগলের স্পিচ রিকগনিশন এখন ১১৯টি ভাষাকে সাপোর্ট কর।

এছাড়া, ইউএস ইংলিশের ক্ষেত্রে এখন ভয়েস ডিকটেশনের মাধ্যমে ইমোজি পাঠানো সম্ভব।

কোন কোন ভাষা স্থান পেয়েছে এই নতুন অন্তর্ভুক্তিতে?

বিশ্বের বৈচিত্রময় ভাষাগুলিকে সম্মান জানাতে গুগল তাদের স্পিচ রিকগনিশন এর এই নতুন তালিকায় জর্জিয়ান এর মত প্রাচীন ভাষাকেও (১০ম শতাব্দী) অন্তর্ভুক্ত করেছে।

আরো রয়েছে আফ্রিকার সর্ববৃহৎ দুই ভাষা সোয়াহিলি ও আমহারিক।

ইন্টারনেট এর ব্যাপ্তিকে আরো বাড়াতে এছাড়াও অন্তর্ভুক্ত হয়েছে ভারতের ৪টি ভাষা গুজরাটি, মারাঠী, কান্নাড়া, মালায়ালাম ও তেলেগু। রয়েছে নেপালি, সিংহলী, সুদানিজ, উর্দু, লাটভিয়ান ইত্যাদি ভাষা।

নিচে সম্পূর্ণ তালিকাটি দেয়া হল:

  • আমহারিক (ইথিওপিয়া)
  • আর্মেনিয়ান (আর্মেনিয়া)
  • আজেরবাইজানি (আজেরবাইজানি)
  • বাংলা (বাংলাদেশ, ভারত)
  • ইংরেজি (ঘানা, কেনিয়া, নাইজেরিয়া, তানজানিয়)
  • জর্জিয়ান (জর্জিয়া)
  • গুজরাটি (ভারত)
  • জাভানিস (ইন্দোনেশিয়া)
  • কান্নাড়া (ভারত)
  • খমের (কম্বোডিয়ান)
  • লাও (লাওস)
  • লাটভিয়ান (লাটভিয়া)
  • মালায়ালাম (ভারত)
  • মারাঠী (ভারত)
  • নেপালি (নেপাল)
  • সিংহলী (শ্রীলংকা)
  • সুদানিজ (ইন্দোনেশিয়া)
  • সোয়াহিলি (তানজানিয়া, কেনিয়া)
  • তামিল (ভারত, সিংগাপুর, শ্রীলংকা, মালয়েশিয়া)
  • তেলেগু (ভারত)
  • উর্দু (পাকিস্তান, ভারত)

নতুন এই ৩০টি ভাষার সংযোজনে গুগল সেই ভাষার নেটিভদের সাথে কাজ করে। প্রথমে তাদেরকে গুগল কিছু সাধারণ বাক্য পড়তে দেয়। এভাবে তাদের উচ্চারণের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরপর গুগলের মেশিন লার্নিং মডিউল সেই ভাষার ধ্বনি ও শব্দ সম্পর্কে বুঝতে শুরু করে। পরবর্তীতে তাকে আরো নতুন নতুন উদাহরণে কাজ করানো হয়। ধীরে ধীরে তার ভুল করার পরিমাণ কমে আসতে থাকে।

এই নতুন অন্তর্ভুক্ত ভাষাগুলি খুব দ্রুত গুগলের ট্রান্সলেট অ্যাপসহ অন্যান্য অ্যাপ এবং প্রডাক্টে চলে আসবে বলে জানিয়েছে গুগল।

বাংলায় ভয়েস টাইপিং এবং ভয়েস সার্চ চালু করার ধাপগুলি

আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে বাংলায় ভয়েস টাইপিং এর জন্য প্রথমে গুগল প্লেস্টোর থেকে জিবোর্ড ইনস্টল করুন। এরপর সাজেশন স্ট্রিপ থেকে G সিলেক্ট করে সেটিং হুইল সিলেক্ট করুন। সেখান থেকে আপনি বাংলা ভাষা সিলেক্ট করতে পারবেন। এরপর মাইক্রোফোনে ট্যাপ করে কথা বলা শুরু করুন।

ভয়েস সার্চ চালু করার জন্য প্রথমে গুগল অ্যাপটি চালু করুন। সেটিংস মেনু থেকে ভয়েস সিলেক্ট করুন। সেখান থেকে বাংলা সিলেক্ট করুন।

ইমোজি পাঠান কথা বলে

গুগল এর আগে ড্রয়িং এবং সার্চিং এর মাধ্যমে আপনার পছন্দের ইমোজি পাঠানো সাপোর্ট করত। নতুন আপডেটের ফলে এখন ইউএস ইংলিশ এর ক্ষেত্রে আপনি যদি মাইক্রোফোনের সামনে উইংকি ফেইস ইমোজি বলেন, তাহলে সেই ইমোজি আপনা আপনি চলে আসবে। গুগল আশা করছে এই ফিচারটি তারা অন্যান্য ভাষায়ও দ্রুত নিয়ে আসবে।