টেক্সাসের এক গৃহিনী  ২০১৩ সালে বিশেষ ধরনের মেঘের একটা ভিডিও করেন। সে সময় ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছিল।

টেক্সাসের এক গৃহিনী  ২০১৩ সালে বিশেষ ধরনের মেঘের একটা ভিডিও করেন। সে সময় ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছিল। এই মেঘকে বলে ‘রোল ক্লাউড’ বা গোল মেঘ। টেক্সাসের আমারিলো অঞ্চলের দক্ষিণে, টিম্বারক্রিক গিরিখাতে গৃহীত এই ভিডিওতে দেখা যায় আকাশের নিচের দিকে টিউব আকৃতির একটা দীর্ঘ মেঘ। দিগন্ত বিস্তৃত সিলিন্ডার আকৃতির এই মেঘ এগিয়ে আসা টর্নেডোর মত আকাশের অনেক নিচের দিকটায় ভূমির সমান্তরালে ঘুরছিল।

টেক্সাসের আকাশে গোলাকার মেঘ – ইউটিউব ভিডিও

টিউবের মত দেখতে এই মেঘ ‘আর্কাস’ মেঘের একটি ধরন। আর্কাস মেঘ নিচু ও সমতল ধরনের মেঘ। আর্কাস ক্লাউডের দুইটি ধরন। এক, রোল ক্লাউড ও দুই, শেল্‌ফ ক্লাউড।

শেল‌্ফ ক্লাউড সৃষ্টি হয় বজ্রঝড়ের সামনের দিক থেকে । রোল ক্লাউড হয় সাগরের ঠাণ্ডা বাতাস থেকে অথবা বজ্রঝড়ে ঠাণ্ডা বাতাসের অনুপস্থিতিতে। রোল ক্লাউডগুলি আকাশে নিচের দিকে তৈরি হয়। কখনো কখনো টিউব আকৃতির এই ‘রোল ক্লাউড’গুলি আকাশে বজ্রঝড়ের সময় সৃষ্টি হয়। ঝড়ের বেগ যখন ঠাণ্ডা বাতাসকে বায়ুমণ্ডলের উপর থেকে পৃথিবীর দিকে ধাক্কা দেয় তখন বায়ুমণ্ডলে উষ্ণতা তৈরি হয়। আর জলীয় বাতাস সেই শূন্যতা পূরণের জন্য উপরের দিকে উঠে যায়। বায়ুমণ্ডলের বাতাসে মিশে থাকা বাষ্প শীতল হয়ে এই মেঘ তৈরি করে।

ঝড়ের বাতাসের ধাক্কার কারণে মেঘটি গোল এবং টিউবের মত আকৃতি পায়। প্রায়ই এই মেঘটি ধাক্কার কারণে ঝড়ের বাকি অংশ থেকে অনেক অনেক দূরে সরে যায়। রোল মেঘকে অনেকটা টর্নেডোর মত দেখালেও রোল ক্লাউড থেকে টর্নেডো সৃষ্টি হয় না।

নেডারল্যান্ডস-এর Enschede-এ শেলফ মেঘ। ১৯ জুলাই ২০০৪; ছবি. উইকিপিডিয়া

শেলফ ক্লাউড বা শেলফ মেঘ আকাশের নিচের দিকে মাটির সমান্তরালে থাকে। শেলফ ক্লাউড সাধারণত বাঁকানো অথবা আংশিক বৃত্তাকার হয়। শেলফ ক্লাউড একটি বজ্রঝড় বা থান্ডারস্ট্রমের সাথে যুক্ত থাকে। এই বজ্রঝড়টি পরে যে কোনো ধরনের ভাসমান মেঘে রূপান্তরিত হতে পারে। শেলফ মেঘটি বজ্রঝড়টির সাথে শেলফের মত যুক্ত থাকে। শেলফ ক্লাউডের সামনের অংশ থেকে সাধারণত মেঘ তৈরি হতে দেখা যায়। আর পিছনের অংশে থাকে ঝড়োগতির বাতাসের ঘূর্ণি।

পিছনের অংশ থেকে ঠাণ্ডা ঝড়ো বাতাস নিচের দিকে অর্থাৎ পৃথিবীর দিকে ছড়িয়ে পড়ে। এই মেঘের সামনের অংশকে বলা হয় গাস্ট ফ্রন্ট। শেলফ মেঘ থেকে শুধু নিচের দিকের ঠাণ্ডা বাতাস বের হয়ে যায় কিন্তু উপরের দিকের গরম বাতাস থেকে যায়। ঠাণ্ডা বাতাস বের হয়ে গেলে উষ্ণ বাতাসের পানি বাষ্পীভূত হয়ে একটি মেঘ তৈরি করে। এই মেঘটি উপরের এবং নিচের বিভিন্ন বাতাসের কারণে কখনো কখনো গোলাকৃতির হয়।

বজ্রঝড়ের উপরের অংশ থেকে টর্নেডো সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। শেলফ ক্লাউড যেহেতু বজ্রঝড়ের নিচের অংশে থাকে, তাই শেলফ ক্লাউড থেকে কখনো টর্নেডো সৃষ্টি হয় না। রোল ক্লাউডের সাথে শেলফ ক্লাউডের পার্থক্য হলো রোল ক্লাউডে মেঘের অন্যান্য বৈশিষ্ট্যগুলি থাকে না। রোল ক্লাউড শেলফ ক্লাউডের মত বজ্রমেঘের সাথে যুক্ত থাকে না। রোল ক্লাউড সবসময় ভূমির সমান্তরালে ঘুরতে থাকে। রোল ক্লাউডগুলি সলিশন নামক ভিন্ন ধরনের একটি তরঙ্গে ঘোরে। এই তরঙ্গের একটা মাত্র শীর্ষ বা চূড়া থাকে। সলিশন সামনে যাওয়ার সময় বা ঘোরার সময় এর আকার এবং গতির কোনো বদল ঘটে না। ‘রোল ক্লাউড’ পৃথিবীর অন্য কোথাও খুব একটা দেখা না গেলেও অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড উপকূলে প্রায় নিয়মিতই দেখা যায়। সকালের বাতাসের কারণে সেখানে রোল ক্লাউড তৈরি হয়।

কুইন্সল্যান্ডের উপকূলে এই মেঘকে বলে ‘মর্ণিং গ্লোরি’।

ব্রাজিলের উপকূলের কাছাকাছি সাগরের উপরে এবং ওয়াশিংটন ডিসি এলাকায়ও ‘রোল ক্লাউড’ দেখা গেছে। শেষ দেখা গেছে ২০১৫ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ সাগরে।