page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
ব্লগ

চায়না’র ‘জিয়াও লি’—লিয়োনারদো ডিক্যাপরিয়ো

২০ মার্চ, ২০১৬-তে চায়নার রাজধানী বেইজিং সফরে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় চায়নার ভূমিকার প্রশংসা করলেন লিয়োনারদো ডিক্যাপরিয়ো।

তিনি বললেন, তিনি বিশ্বাস করেন বিশ্বের সর্বোচ্চ গ্রীণহাউস গ্যাস নির্গমনকারী দেশ চায়না জলবায়ু রক্ষা আন্দোলনের নায়ক হতে পারে।

২০১৬ এর ফেব্রুয়ারির শেষে অস্কার গ্রহণ করার সময়ও জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই করার আহবান জানিয়েছেন ডিক্যাপরিয়ো। কার্বন নিঃসরণ কমানোর লক্ষ্যে চায়নার নবায়নযোগ্য শক্তি ব্যবহারের প্রশংসা করেছেন তিনি।

ডিক্যাপরিয়ো বলেন, আমরা সবাই জানি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চায়না সবচেয়ে বেশি কার্বন নিঃসরণ করে। আমি মনে করি চায়না বিকল্প ও নবায়নযোগ্য শক্তি ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়ে একটি র‍্যাডিক্যাল কাজ করেছে। আমি আসলেই মনে করি পরিবেশ রক্ষার আন্দোলনের ক্ষেত্রে চায়না নায়ক হতে পারে। এই বিশ্বকে বদলে দেওয়ার সুযোগ তাদের রয়েছে, এবং সেই আত্মবিশ্বাস ও ইচ্ছাও তাদের আছে। ২০১৬ এর ১৮ মার্চ লিওনার্দো ডিক্যাপরিয়ো অভিনীত ‘দি রেভেন্যান্ট’ চায়নার মূল ভূখণ্ডে মুক্তি পেয়েছে এবং দুই দিনেই ছবিটি ১০০ মিলিয়ন ইয়েন আয় করেছে।

air-pullution-china

চীনে বায়ুদূষণ

‘দি রেভেন্যান্ট’ ছবির জন্য ডিক্যাপরিয়ো এই প্রথম সেরা অভিনেতা হিসেবে অস্কার জিতেছেন, সেই রেভেন্যান্টের প্রমোশনের জন্য তিনি চায়না গিয়েছেন।

ডিক্যাপরিয়ো এর আগেও অনেকবার চায়না গেছেন। চায়নায় হলিউডের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেতা লিয়োনারদো ডিক্যাপরিয়ো, বিশেষ করে টাইটানিক ছবির কারণে। চাইনিজরা পছন্দ করে লিয়োনারদো ডিক্যাপরিয়োকে জিয়াও লি নামে ডাকে, এর অর্থ লিটল লিও।

সারা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি কয়লা ব্যবহার করে থাকে চায়না, আর এই কয়লা থেকেই প্রচুর কার্বন নিঃসরণ ঘটে। তবে সৌর শক্তি ও বাতাসের শক্তির মত প্রাকৃতিক ও নবায়নযোগ্য শক্তি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে এখন প্রধান বিনিয়োগকারী দেশ চায়না।

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক