মদনপুর থেকে আধ ঘণ্টার পথ। সোনারগাঁর জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে তাজমহলের অবস্থান।

যেই দিন শুনলাম বাংলাদেশে তাজমহল তৈরি করা হচ্ছে তখন আমি ময়মনসিংহ। ঢাকায় আসি নি তখনও। একটা প্রশ্ন ছিল কেন নারায়ণগঞ্জে তৈরি হচ্ছে, ঢাকায় কেন নয়। পরে শুনলাম এটা ব্যক্তি মালিকানার। বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও চলচ্চিত্র নির্মাতা আহসান উল্লাহ মনি তার নিজ গ্রামে এটি স্থাপন করেন।

তাজমহলে যাওয়ার রাস্তাটা সরু। রাস্তার পাশে গাছপালা আর ফাঁকা স্পেস ছিল অনেক। বৃষ্টির পানি জমে ক্ষেতের ঘাসের উপর দিয়ে পানি দেখা যাচ্ছিল।

রিকশা দিয়ে যখন যাই তখন সবার আগে চোখে পড়ে পিরামিড। যা মিশরের পিরামিডের আদলে বানানো। তখন পর্যন্ত জানতাম না সেখানে একই সাথে পিরামিডও যে আছে।

পিরামিড থেকে একটু সামনেই তাজমহল। আশপাশে অনেক সবুজ। ভাবছিলাম অনেক সময় নিয়ে দেখতে পারব। কৌতূহল থেকে রিকশাওয়ালাকে জিজ্ঞেস করলাম দেখতে কত সময় লাগবে?

আমাদের হাতে সময় ছিল কম। বিকেলের দিকে গেছি। রিকশাওয়ালা সঠিক কিছু বলতে পারছিল না।

বাহির থেকেই তাজমহল দেখা যায়। ভেতরে যাবার একটা গলি আছে। তার পাশে কিছু দোকান। ৫ মিনিটের মধ্যে আমাদের দেখা শেষ। সবাই ছবি তুলতে ব্যস্ত। তাই ছবি তোলার জন্য একটু সময় নিতে হয়েছে। জায়গাটা এত ছোট পরিসরের যে একটা ছবিতেই সবটা চলে আসে।

পিরামিডের কথা বলছিলাম। নাম রাজমনি পিরামিড। এটি রাজমনি ফিল্মসিটির অন্তর্ভুক্ত একটি প্রতিষ্ঠান। এখানে আছে কিছু ফিল্মের ক্যামেরা। ককসিটের বেহুলার বাসর। সিনেমা হল। পুরনো গাড়ি। ক্ষুদিরামের ফাঁসির মঞ্চ, ও টিনের ঘর।

পিরামিডের ভিতরে প্রবেশের জন্য রয়েছে সিঁড়ি, যা মোটামুটি এক তলার মত নিচে। নেমেই প্রথমে চোখে পরে রক্ষিত মমির ডামি। ওখানে ৭ কি ৮টা মমি রয়েছে।  সাদা কাপড়ে মোড়ানো। একটু ভয় পেয়ে গেছিলাম। সাদা কাপড় দেখে। কিছু ছেলে পেলে চিল্লাচ্ছে। প্রতিশব্দ হচ্ছে গুম গুম আওয়াজে। সত্যি বলতে একটু ভয়ের ব্যাপারও ছিল। একটা মেয়ে কেঁদেই ফেলেছে। পিরামিডের ভিতরে মৃদু আলো দিয়ে সাজানো। ঘুরে ঘুরে অন্য দিক দিয়ে বেরিয়ে আসতে হয়।

তাজমহলে ঢোকার গলি

 

তাজমহল

 

মিনার

 

মিনার

 

বিশ্রামের স্থান

 

বিশ্রামের স্থান থেকে তাজমহল

 

পানির ফোয়ারা

 

মূল স্তম্ভ

 

খাবার ঘর

 

সড়ক

 

পিরামিডে ঢোকার গেট

 

পিরামিডে ঢোকার গলি

 

বিশ্রাম স্থান

 

পিরামিড

 

ফাঁসির মঞ্চ

 

গাড়ি

 

বেহুলার বাসর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here