page contents
লাইফস্টাইল, সংস্কৃতি ও বিশ্ব
লাইফস্টাইল

ফ্যাট ১০ জিন সরিয়ে ফেলে কি ওজন কমানো ও আয়ু বাড়ানো সম্ভব?

১.
ইঁদুরের শরীর থেকে ফ্যাট-১০ জিন বাদ দিলে দেখা যায়, স্বাভাবিক ইঁদুরের চেয়ে তাদের ওজন কম থাকে, বয়স ধীরে বাড়ে এবং আয়ু শতকরা ২০ ভাগ বেড়ে যায়।

টাফটস এবং ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ইঁদুর নিয়ে গবেষণা করে জানতে পেরেছেন ফ্যাট-১০ জিন মুক্ত ইঁদুরের দেহে শক্তিশালী রোগ-প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে ওঠে। গবেষকদের আশা, এই গবেষণা মানুষের ক্ষেত্রেও একই ধরনের ফল বয়ে আনবে।

ভবিষ্যতে ফ্যাট-১০ সংক্রান্ত গবেষণা থেকে মানুষের মোটা হওয়া, মেটাবলিক উপসর্গ, ডায়াবেটিক, ক্যান্সার, দ্রুত বয়স বেড়ে যাওয়া এসবের জন্য নতুন থেরাপি উদ্ভাবন সম্ভব হবে।

২.
গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন ফ্যাট-১০ জিন ইঁদুরের বডি ফ্যাট বা শরীরের ওজন কমাতে এবং জীবনের আয়ু বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

ধারণা করা হচ্ছে তারা প্রজনন সংক্রান্ত সফল পরীক্ষা চালিয়েছেন। তারা এমন জিন শনাক্ত করতে পেরেছেন যা বাদ দিলে শরীরের ওজন কমবে এবং আয়ু বাড়বে।

দুর্ভাগ্যবশত অথবা সৌভাগ্যবশত (আপনি যেভাবে দেখেন তার উপর নির্ভর করে) বিজ্ঞান এখনো সে পর্যন্ত পৌঁছায় নি।

কিন্তু অনেকের কাছে এই গবেষণাটি আশার ব্যাপার হতে পারে। টাফটস ইউনিভার্সিটি এবং ইয়েল ইউনিভার্সিটির গবেষকরা একটি পরিচিত জিনের মেটাবলিজম এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পর্যবেক্ষণ করেছেন। ফ্যাট-১০ জিন  সম্পর্কে তাদের বোঝাপড়া একদিন কাজে লাগাতে পারবেন বলে আশা করছেন গবেষকরা। তারা আশা করছেন মানব-গোষ্ঠীর উপরেও এটা কীভাবে কাজে লাগানো যাবে তা বের করতে পারবেন।

টাফটস ইউনিভার্সিটির ফাংশনাল জিনোমিক্স কোর ইউনিটের সহকারী বিজ্ঞানী ড. মার্টিন এস অবিন বলেছেন, প্রদাহের কারণে ফ্যাট-১০ জিনটি উদ্ভূত হয় এবং স্ত্রীরোগঘটিত ও  গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল কারণে বৃদ্ধি পায় বলে মনে হয়। এছাড়া কেউ আসলে জানে না ফ্যাট-১০ জিনটি কী করে।

ফ্যাট-১০ জিনটি ম্যামাল গোত্রের সব প্রাণীর দেহেই আছে। এবং গবেষণার পরে প্রমাণ হয়েছে যে নির্দিষ্ট ক্যান্সারজনিত টিউমারে ফ্যাট-১০ জিনটি বেশি অনুপাতে দেখায়।

আরো সাম্প্রতিক গবেষণায় ফ্যাট-১০ জিনটি কীভাবে কোষের বিভিন্ন প্রোটিনকে প্রভাবিত করে তা পর্যবেক্ষণ করা গেছে। এর আগের গবেষণার ভিত্তিতে, এই জিনটি কীভাবে মেটাবলিজম এবং ফ্যাট টিস্যু প্রভাবিত করে তা দেখার চেষ্ট করেছেন বিজ্ঞানীরা। তারা ফ্যাট-১০ জিন অকার্যকর অবস্থায় আছে এমন কয়েকটি ইঁদুর ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেন। প্রাথমিকভাবে তারা ইঁদুরের দেহে এই তথাকথিত ফ্যাট-১০ অকার্যকর করে নেন প্রযুক্তির মাধ্যমে। তাদের উদ্দেশ্য ছিল ফ্যাট-১০ জিন এবং পচনের মধ্যে কোনো সম্পর্ক আছে কিনা তা দেখার। এই ইঁদুরগুলির বয়স তারা বাড়িয়েছিলেন পচনের প্রতি প্রযুক্তি প্রয়োগ করা ইঁদুরের দেহ কীভাবে সাড়া দিচ্ছে তা দেখার জন্য।

ইঁদুরেরা বয়স বাড়ার সাথে সাথে মোটা হয়ে যায় এই ধারণা থেকে তাদের গবেষকরা দুটি কলোনি তৈরি করেন। একটিতে ছিল প্রযুক্তি প্রয়োগ করা ফ্যাট-১০ জিনবিহীন ইঁদুর এবং আরেকটিতে স্বাভাবিক ইঁদুর।

৩.
ইঁদুরেরা বয়স বাড়ার সাথে সাথে মোটা হয়ে যায় এই ধারণা থেকে তাদের গবেষকরা দুটি কলোনি তৈরি করেন। একটিতে ছিল প্রযুক্তি প্রয়োগ করা ফ্যাট-১০ জিনবিহীন ইঁদুর এবং আরেকটিতে স্বাভাবিক ইঁদুর। গবেষকরা তাদের বেড়ে ওঠা পর্যবেক্ষণ করতে থাকেন।

আশ্চর্যজনকভাবে, প্রযুক্তি প্রয়োগ করা ইঁদুরের বয়স স্বাভাবিক ইঁদুরের চেয়ে ধীরে বাড়ছিল এবং ওজনও কম ছিল।

আসলে, ফ্যাট-১০ জিনবিহীন ইঁদুর তুলনামূলকভাবে তরুণ এবং শক্তসমর্থ হয়। তাদের পেশীর গঠন ভালো হয় এবং বয়স সংক্রান্ত কোনো টিউমার থাকে না।

বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, স্বাভাবিক ইঁদুরের চেয়ে বেশি খাবার খেলেও  ফ্যাট-১০ জিন মুক্ত ইঁদুরের দেহে অর্ধেক পরিমাণ ফ্যাট টিস্যু থাকছে। তারা অনেক দ্রুত ফ্যাট ঝরাচ্ছিল। এছাড়া তাদের কঙ্কালতন্ত্রের পেশী ইনসুলিনে সাড়া দেয় এমন ধরনের প্রতিরোধী অণু গঠন করে। এর ফলে শরীরে ইনসুলিনের মাত্রা কমে যায় এবং টাইপ২ ডায়াবেটিসের প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে ওঠে। এবং আয়ু বেড়ে যায়।

প্রেস রিলিজে অবিন বলেন, ফ্যাট-১০ জিন সরানোর ফলে বডি ফ্যাট কমানো সহ ইঁদুরদের মধ্যে অনেক উপকারী প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়। এটা বয়স বৃদ্ধি ধীরগতির করে দেয় এবং জীবনের মেয়াদ শতকরা ২০ ভাগ বাড়িয়ে দেয়।

৪.
গবেষণাটি কি আসলেই অনেক ভালো ফলাফল বয়ে আনবে?

গবেষকরা সতর্ক করেছেন, ফ্যাট-১০ জিন বাদ দেওয়াটা বয়স বৃদ্ধি এবং ওজন বৃদ্ধির দ্বৈততাকে পুরোপুরি স্থির করতে পারে না। অবিন বলেন, ল্যাবরেটরির ইঁদুরগুলি জীবাণুমুক্ত আদর্শ পরিবেশে থাকে। সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে শক্তির দরকার হয়, আর জমানো ফ্যাট এই শক্তি দিয়ে থাকে। ফ্যাট-১০ জিনবিহীন ইঁদুরগুলি ল্যাবরেটরি ব্যবস্থার বাইরে কার্যকরভাবে সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে কমজোর হতে পারে।

যদিও ইঁদুরদের শরীর থেকে ফ্যাট-১০ জিন বাদ দেওয়ার সম্পূর্ণ প্রতিক্রিয়া কী তা বুঝতে আরো অনেক গবেষণার দরকার, তবু ভবিষ্যতে গবেষণার অনেক সম্ভাবনা উত্তেজনাকর। ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক্স ডিপার্টমেন্টের সহযোগী বিজ্ঞানী ড. অ্যালন ক্যানান বলেন, ফ্যাট-১০ জিনের সাথে সম্পৃক্ত সব প্রোটিনের দিকে তাকিয়ে থাকা গবেষকদের জন্য এখন একটি নাটকীয় রোড ম্যাপ আছে।

মেটাবলিজম এবং রোগ প্রতিরোধ সংক্রান্ত যা কিছু ফ্যাট-১০ জিন করে তা বন্ধ করে মেটাবলিক রোগ, মেটাবলিক উপসর্গ, ক্যান্সার এবং স্বাস্থ্যকর বয়স বৃদ্ধির জন্য নতুন থেরাপি উদ্ভাবন সম্ভব হতে পারে। কারণ, আমরা যখন এটা করি ফলাফল আসে যে ইঁদুরগুলি দীর্ঘদিন বাঁচে।

এখন গবেষণা সম্পূর্ণ হলে বোঝা যাবে তা মানবজাতির জন্য কতটা কল্যাণ নিয়ে আসতে পারে।

 

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক