page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
লাইফস্টাইল

মফিজ ঘোড়া কিনল

মফিজ নামের এক তরুণের হঠাৎ ঘোড়া কিনার ইচ্ছা হইল। সে শুনলো দূরের গ্রামের চাষী গণি মিয়া তার বৃদ্ধ ঘোড়া কম দামে ছেড়ে দেবে।

পরদিন দুপুরের খাবার খেয়ে মফিজ হাঁটা ধরল গণি মিয়ার বাড়ি। অনেক দামদস্তুর করে চাষী তার কাছে বিশ হাজার টাকায় ঘোড়া বিক্রি করল।

গণি মিয়া বলল, এখন এই ঘোড়া মফিজের। কিন্তু এই রাতের বেলা সে ঘোড়া নিয়ে রওনা হলে পথে ডাকাতের কবলে পড়তে পারে। বরং পরদিন সকাল বেলায় চাষী নিজেই লোক মারফত মফিজের বাড়িতে ঘোড়া পৌঁছে দেবে।

পরদিন সকালে গণি মিয়া নিজেই এল মফিজের বাড়িতে। বলল, মফিজ, আমার কাছে দুঃসংবাদ আছে। তোমার ঘোড়াটা গতরাতে হঠাৎ মরে গেছে।

মফিজ বলল, তাইলে আমার বিশ হাজার টাকা ফেরত দেন।

গণি মিয়া বলল, সে জন্যেই আসছি আমি। টাকা তো আর নাই। সব টাকা খরচ হয়ে গেছে।

তখন মফিজ বলল, ঠিক আছে গণি কাকা, আমারে আপনি ওই মরা ঘোড়াই দিয়া যান।

চাষী গণি খুব অবাক। সে বলল, মফিজ, তুমি আমার মরা ঘোড়া দিয়ে কী করবা?

মফিজ জবাব দিল, আমি ওই মরা ঘোড়া দিয়ে লটারি খেলার আয়োজন করব।

চাষী বলল, মরা ঘোড়া দিয়ে লটারি খেলা যায় না।

মফিজ বলল, আমি ঠিকই পারব। আমি কাউরে বলবই না যে এইটা মরা ঘোড়া।

***

এক মাস পরে হাটের মধ্যে মফিজের সঙ্গে সেই চাষীর আবার দেখা। সে হেসে জিজ্ঞেস করল, কী খবর মফিজ, তারপর, সেই মরা ঘোড়ার কী হইল?

মফিজ বলল, আমি লটারি ছাড়ছিলাম কাকা। প্রতিটা ১০০ টাকা দরে ৫০০ লটারির টিকেট বিক্রি করছি আমি। আমার মোট লাভ হইছে ৫০ হাজার টাকা।

গণি মিয়া খুবই অবাক হইল। সে বলল, কেউ আপত্তি করে নাই?

মফিজ বলল, করছে, শুধু একজন করছে। যে লটারি জিতছে সেই লোক আপত্তি করছিল। আমি তারে তার লটারির দাম, অর্থাৎ ১০০ টাকা ফেরত দিয়া দিছি।

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক