দিবালা যদি জুভেন্টাস ছেড়ে চলে যান তাহলে অবশ্যই রোনালদোর উপর চাপ পড়বে।

রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে আসার পর জুভেন্টাসে রোনালদোর প্রথম মৌসুম কেটেছে ভালো-মন্দ মিশিয়ে।

ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসে আসার পর রোনালদো গোল পেয়েছেন, সিরি আ লিগের শিরোপাও জিতেছেন, তবে তার প্রধান যে লক্ষ্য ছিল সেটা পূরণ করতে পারেননি। রোনালদো চেয়েছিলেন জুভেন্টাসকে এবার তিনি সমগ্র ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের সবচেয়ে সম্মানজনক অবস্থানে নিয়ে যাবেন, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জেতাবেন।

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জুভেন্টাস বেশ আত্মবিশ্বাসের সাথেই এগিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু নেদারল্যান্ডের ক্লাব আয়াক্সের কাছে হেরে তাদের বিদায় নিতে হয়েছে এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আসর থেকে। নিজেদের মাঠেই জুভেন্টাস হেরেছে আয়াক্সের কাছে।

এমনকি আটলান্টার কাছে হেরে কোপা ইতালিয়া কাপ থেকেও ছিটকে পড়তে হয়েছে জুভেন্টাসকে।

আসছে সামার সিজনে, ট্রান্সফার শুরু হলে জুভেন্টাস তাদের দল গোছানোর দিকে মনোযোগ দিবে। আপাতত তাদের নজর সেদিকেই।

ইতোমধ্যেই চূড়ান্ত হয়েছে যে অ্যারন রামসে আর্সেনাল থেকে জুভেন্টাসে যোগ দিতে যাচ্ছেন। তবে আরো অনেকেই আসবেন এবং গুরুত্বপূর্ণ কেউ কেউ দল ছেড়ে চলেও যাবেন।

যারা চলে যাবেন তাদের মধ্যে আছেন জুভেন্টাসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়, আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাওলো দিবালা। রোনালদো জুভেন্টাসে যোগ দেয়ার পর এই সিজন খুব বাজেভাবে কাটিয়েছেন দিবালা। সিরি আ লিগের পুরো মৌসুমে মাত্র ৫টা গোল করেছেন।

রোনালদো জুভেন্টাসে আসার কারণেই যে এটা হচ্ছে সেটা স্পষ্ট করে বলেছেন দিবালার ভাই এবং এজেন্ট গুস্তাভো দিবালা।

গুস্তাভো বলেছেন, অনেক বেশি সম্ভাবনা আছে যে পাওলো জুভেন্টাস ত্যাগ করবে। তার একটা পরিবর্তন দরকার। সে এখানে সুখী না এবং সে একাই দল ছেড়ে যাবে না, অনেকেই যাবে। অনেক খেলোয়াড়ই জুভেন্টাসে অসুখী সময় পার করছেন, শুধু পাওলো না।

গুস্তাভো আরো বলেছেন, সে আগে ইতালিতে খুব স্বাছন্দ্যে ছিল, কিন্তু এখন আর নেই।

রোনালদোর সাথে দিবালার সমস্যা আছে কিনা সে প্রসঙ্গে গুস্তাভো বলেছেন, মাঠের বাইরে কোনো সমস্যা নেই, সমস্যা আছে মাঠের মধ্যে। আপনি তাকে তার জায়গা থেকে সরাতে পারবেন না আর পাওলো এখনো অনেক তরুণ।

দিবালা যদি জুভেন্টাস ছেড়ে চলে যান তাহলে অবশ্যই রোনালদোর উপর চাপ পড়বে। কারণ তখন রোনালদো’ই হবেন দলের আক্রমণ ভাগের একমাত্র তারকা এবং দলের ফোকাল পয়েন্ট।

রোনালদো আসার আগে জুভেন্টাসের প্রধান নির্ভরতা ছিল দিবালার উপরে এবং দিবালা সেখান থেকেই ইউরোপের সেরা খেলোয়াড়দের একজন হয়েছেন।

দিবালার প্রতি অনেক ক্লাবই নজর রাখছে। স্পেনের ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ বেশ কিছুদিন ধরে দিবালাকে তাদের দলে ভিড়াতে চাইছে।