page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
ব্লগ

যমজদের গোপন ভাষা নাকি আবোল তাবোল শব্দ? (ভিডিও)

বাসার রান্নাঘরে ডায়াপার পরা দুই যমজ শিশুর কথা বলার ভিডিওটি ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের। ভিডিওটি ইন্টারনেটে প্রকাশ হওয়ার পর ভাইরাল হয়ে যায়। মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষ এই ভিডিওটি দেখেছে। কারণ, সবাই বিস্মিত হয়েছে যে বাচ্চা দুটি আসলে কী নিয়ে কথা বলছে।

কথা বলার ব্যাপারে বিশেষজ্ঞরা বলেন এই দুই ছেলে শিশুর ভাষা শেখার সময়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত ভিডিওতে ধরা পড়েছে। তবে এটা সত্যিকারের অর্থপূর্ণ আলাপ না, এটা আসলে বাচ্চাদের আবোল তাবোল শব্দ বা মিমিক্রি।

ভ্যান্ডারবিল্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব মেডিসিনের ধ্বনি ও শ্রবণ বিজ্ঞানের অধ্যাপক স্টিফেন ক্যামারাটা বলেছেন, অনেকেই মনে করে নিজেদের মধ্যে আলাদা এক ধরনের নিজস্ব ভাষা, একটি যমজ ভাষা তৈরির ক্ষমতা যমজদের আছে। তবে পরিপূর্ণ  ভাষা সিস্টেমের বিবেচনায় এটা তত সত্য নয়। এই ভিডিওতে তারা আগাচ্ছে, পিছাচ্ছে এবং একজন আরেকজনের সঙ্গ উপভোগ করছে। কিন্তু তারা নির্দিষ্ট অর্থপূর্ণ কিছু বলছে না। ‘ হেই, মা কিন্তু আমাদের ভিডিও করছে। তার চুলের দিকে দেখো’—এরকম অর্থপূর্ণ কিছু তারা বলছে না।

ব্লগ সাইট টুইনমামারামা ডটকমে (TwinMamaRama.com) ২০১১ এর ফেব্রুয়ারিতে ভিডিওটি আপলোড করা হয়েছিল। ভিডিওটি পোস্ট করেছিল এই যমজ দুই শিশুর মা। তিনি তার নাম উল্লেখ করেন নি, তবে উল্লেখ করেছেন যে তিনিও যমজ।

twin-3

ভিডিও প্রকাশের ৪ বছর পর দুই যমজ, আগস্ট ২০১৫।

ভিডিওটিতে দেখা যায় বাচ্চা দুটি শুধু ডায়াপার ও মোজা পরে আছে। বাসার ফ্রিজের কাছে দাঁড়িয়ে দুজন খুবই ঘনিষ্ঠ এক্সপ্রেশন দিয়ে, আগ্রহের সাথে, ফানি ভঙ্গিতে দুজন কথা বলছে। একজন এই অর্থহীন বাক্য বলার পরে, আরেকজন জবাব দিচ্ছে। তাদের আচরণে বোঝা যাচ্ছে তারা কিছু একটাকে নির্দেশ করছে, হঠাৎ করে তাদের কথা বলার গতি বেড়ে যাচ্ছে, আবার তারা হেসে উঠছে।

ভিডিওটি প্রকাশিত হওয়ার এক মাসের মধ্যে ছয় মিলিয়ন দর্শক ভিডিওটি দেখেছে। এই ভিডিও নিয়ে টেলিভিশনে রিপোর্টও হয়েছে।

ড. ক্যামারাটা বলেছেন, বাচ্চাদের ভাষা শেখার প্রক্রিয়ার একটি অসাধারণ উদাহারণ এই ভিডিও। এই ভিডিওতে দুই শিশুর আলাপের আবোল-তাবোল শব্দ এত শৃংখলাপূর্ণ, মনে হয় যে তারা আসলেই ভাষা ব্যবহার করছে। তারা একজন আরেকজনকে মিমিক করার জন্য ‘ভাওয়েল’, ‘কনসোন্যান্ট’ ও ‘সিলেবল’ ব্যবহার করেছে। সব সুস্থ বাচ্চাই ভাষা শেখার ক্ষেত্রে এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যায়। তবে তারা হয়ত এই জিনিসট করে বাবা-মা অথবা বড় ভাই-বোনের সাথে, ফলে তাদেরটা হয় একমুখী। যমজ বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটি আলাদা কারণ তারা ভাষা প্র্যাক্টিস করার জন্য নিজের মতই আরেকজনকে পায়।

তিনি আরো বলেন, এইখানে উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হলো, উভয়েরই স্বরভঙ্গি রয়েছে। এতে মনে হয় তারা কথা বলছে, কোনো স্টেটমেন্ট দিচ্ছে, প্রশ্ন করছে। আমরা ভাষা ব্যবহারে যে বড় বড় চিহ্ন ব্যবহার করি, তারাও সে সব ব্যবহার করছে। এখানে হয়ত এই দুইজন তাদের বাসার রান্নাঘরে তাদের দেখা একটা আলাপ পুনরাবৃত্তি করার চেষ্টা করছে।

ড. ক্যামারাটা বলেন, বড়দের দেখে কিছু শেখার ক্ষেত্রে বাচ্চারা খুব চালাক। ওই রান্নাঘরে স্বামী-স্ত্রী বা অন্য কারো মধ্যে আলাপ হয়েছিল যেটা এই দুজন মিমিক করছে, যদি এ রকম না হয়ে থাকে তাহলে খুব আশ্চর্যের ব্যাপার। এই আলাপের ধরন অবশ্যই হয়ত তাদের বাবা মাকে দেখে শিখেছে।

ক্যামারাটা জানিয়েছেন এই ভিডিও দেখে তিনি খুবই আনন্দ পেয়েছেন, কারণ তিনি প্রায়ই সে সব বাচ্চাদের সাথে কাজ করেন যাদের অটিজম অথবা অন্য কোনো কারণে কথা বলতে দেরি হচ্ছে। তিনি মনে করেন, যে সব বাবা-মায়ের বাচ্চারা দেরিতে কথা বলেছে, এই ভিডিও দেখে তাদের বাচ্চাদের অসাধারণ অর্জনের কথা মনে করবে।

তিনি বলেন, এখানে বাচ্চারা খুবই স্বতস্ফূর্ত ও অন্য কারো নিয়ন্ত্রণ ছাড়া একে অন্যের সাথে কথা বলছে। এখানে অনেক দারুণ ব্যাপার আছে। এখনকার দিনে লোকজন তাদের বাচ্চাদের কাজকর্ম প্রোগ্রামিং করে দেয়, এতে আমরা এই স্বতঃস্ফূর্ততা হারাচ্ছি। বাচ্চারা যেসব স্বতঃস্ফূর্ত কাজ করে সেগুলি খুবই মজার ও এক্সাইটিং, আমার চিন্তা হয় যে আমরা এসব দেখি না এবং এগুলি সেলিব্রেটও করি না।

ভিডিও লিংক ১

vedio-1

লিংকের জন্যে ছবিতে ক্লিক করুন।

ভিডিও লিংক ২

vedio-2

লিংকের জন্যে ছবিতে ক্লিক করুন।

 

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক