page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
লাইফস্টাইল

“যারা অন্য সিনিয়র কবির পরামর্শ এবং উপদেশ নিয়ে চলে তারা আসলে কেউ কবি না।”—তুষার দাশ

কামরুল হাসনাত: কী করছেন?

তুষার দাশ: আমি ব্যবসা করি।

কামরুল: এই মেলায় আপনার কী বই আসলো, এবার?

তুষার: আমার একটা কবিতার বই এসছে এবার।

কামরুল: কী নাম?

তুষার: ‘আমাদের সম্মিলিত মেধাতালিকার দিন’।

কামরুল: লেখালেখি তো অনেক আগে থেকেই?

তুষার: হ্যাঁ, আমি প্রায় বৃদ্ধ হয়ে গেছি লিখতে লিখতে।

কামরুল: আচ্ছা আপনি যে এতগুলো বই লিখলেন, এর মধ্যে আপনার প্রিয় বই কোনটা?

boimela-logo-2016

তুষার: এত বই কোথায় লিখেছি। আমি হুমায়ূনের মত লিখি নি তো! হুমায়ূনের ৩০০ বই। তারপরে ওর ভাইয়ের আরও অনেক বই। ওরকম তো আর লিখি নি আমি। আমার ছ’টা বই কবিতার, দুটো বই প্রবন্ধের, একটা কবি আহসান হাবীবের জীবনী। এই হচ্ছে আমার বই, সব মিলে।

কামরুল: আপনার এই বইটার মূল থিমটা কী?

তুষার: আমার এই বইয়ের আসলে ওরকম কোনো থিম নেই। বেসিক বিষয় হচ্ছে যে, আমি যে সমাজটিতে বাস করি ওটা তো একটা নষ্ট এবং প্রতারক এবং বদমাশ সমাজ তো, ওখানে নানারকম অভিঘাতে নানা রকম কথা উঠে এসেছে। কখনো সেটা প্রেমের দিকে গেছে, কখনো সেটা রাজনীতির দিকে গেছে, কখনো ভণ্ডামিকে গালি দিয়েছি—এই আর কি। জিনিসটা হচ্ছে যে আমার আগের বইটি বেরিয়েছিল কিন্তু ২০০৮-এ। ৯-এ, সরি ৯-এ বেরিয়েছিল। ছ’বছর পরে আবার কবিতার বই বের হলো। এই ছ’বছর ধরে আমি লিখেছি। আমি প্রতিদিন কবিতা লিখি না। আবার একসঙ্গে ছটাও লিখি, সাতটাও লিখি। এরকম আর কি। এগুলা জমানো হয়েছে। আমি দীর্ঘদিন ব্যবসা চাকরি এগুলার কারণে অনেক কিছু করতে পারি নি। এখন সেই সুযোগটা হয়েছে।

কামরুল: আচ্ছা, আপনি তো একটা ২০০৯ সালের পর এটাই, না আরেকটা কবিতার বই লিখলেন?

তুষার: ষষ্ঠ। আমার এর আগে পাঁচটি বই বেরিয়েছে কবিতার।

কামরুল: এটা হল আপনার ষষ্ঠ বই?

তুষার: কবিতার বই।

কামরুল: কবিতার দুই নাম্বার বই?

তুষার: কবিতার ষষ্ঠ বই।

কামরুল: কবিতার ষষ্ঠ বই।

তুষার: আমার টোটাল বইয়ের সংখ্যা এখন দাঁড়ালো নয়-এ গিয়ে।

কামরুল: নয়ে গিয়ে। আর বাদবাকি তিনটা?

tushar-das-book

প্রকাশক: ফারেনহাইট এমসিএল পাবলিকেশন্স। মেলায় একমাত্র পরিবেশক: বাতিঘর। দাম: ১৩০ টাকা। প্রচ্ছদ ও প্রচ্ছদের আলোকচিত্র: শেখ কবির।

তুষার: বাদবাকি তিনটা হচ্ছে প্রবন্ধ এবং কবি আহসান হাবীবের জীবনী। একটা, প্রথম বই আমি লিখি কবি আহসান হাবীবের কবিতার উপরে। ওটার নাম ছিল ‘নিঃশব্দ বজ্র: আহসান হাবীবের কবিতা’। এটা কবিতার অ্যাপ্রাইজাল আর কি। ওনার সমগ্র কবিতার উপরে আমি একটা সমালোচনামূলক বই লিখেছিলাম। এটা বাংলা একাডেমি থেকে বেরিয়েছিল। এবং আমার দ্বিতীয় বইটিও বেরিয়েছিল কিন্তু বাংলা একাডেমি থেকে। সেটা আহসান হাবীব আমার বইটা লেখার ওই বছরে, আমার ফেব্রুয়ারিতে বই বেরিয়েছে উনি জুলাই মাসের ১০ তারিখে মা্রা যান। তারপরে বাংলা একাডেমী একটা সিরিজ করেছিল, সব লেখকদের জীবনী নিয়ে। যেহেতু যারা মারা গেছেন তাদেরই শুধু জীবনী হতো। আহসানে হাবিবের জীবনীটা কিন্তু তখন আমার উপর দায়িত্ব পড়ে, আমার শিক্ষক ছিলেন ড. আবু হেনা মোস্তফা কামাল, উনি আমাকে দায়িত্ব দেন যে, আহসান হাবিবের উপর যেহেতু আপনে লিখেছেন, উনার জীবনীটাও আপনি লিখে দেন। আমি লিখে দিলাম। ঐ বছরই আমার প্রথম কবিতার বই বের হলো।

কামরুল: কত সালে এটা?

তুষার: এটা ৮৭। ৮৫-তে প্রথম বই। দ্বিতীয় বই এবং তৃতীয় বই ৮৭-র ফেব্রুয়ারিতেই বেরিয়েছে।

কামরুল: চতুর্থ বই আপনার?

তুষার: আমার চতুর্থ বই আবার কবিতার।

কামরুল: কত সালে?

তুষার: এটা সম্ভবত ৯০-এ, দ্বিতীয় কবিতার বই।

কামরুল: মানে আপনার কবিতাগুলা এত গ্যাপ গ্যাপ দিয়ে লেখার কারণটা কী?

তুষার: না, গ্যাপ না। কবিতা লেখা না হয়ে উঠলে তো আপনি কবিতার বই বের করতে পারবেন না। আপনার তো কবিতা জমতে হবে।

কামরুল: হ্যাঁ হ্যাঁ, মানে আপনি তো একটা বই লিখতে মিনিমাম… পাঁচ ছয় বছর সাতবছর লেগে যাচ্ছে।

তুষার: হ্যাঁ, কারণ লেখা কম হচ্ছে, আমরা চাকরি বাকরি এবং সময়ের নানারকমের জটিলতা, এসব কারণে লেখা হয়ে ওঠে না।

কামরুল: আপনি যেহেতু অনেক আগে থেকে লেখালেখি করেন, এই লেখালেখির জগতে আপনার, মানে প্রিয় বলব না আসলে, আপনি কার লেখাগুলা পড়তে পছন্দ করেন?

তুষার: অনেক লেখক আমার প্রিয়।

কামরুল: দুই একজনের না?

তুষার: যেমন আমার সবচাইতে প্রিয় লেখক একজনের নাম হচ্ছে, আবু সয়ীদ আইয়ু্ব।

কামরুল: আচ্ছা।

তুষার: সুধীন্দ্র নাথ দত্ত—কবি, জীবনানন্দ দাশ, সব বাংলা সাহিত্যের মাষ্টার লেখকরা আমার খুব প্রিয়। মানিক বন্ধ্যপাধ্যায়, বিভূতিভুষন বন্ধ্যপাধ্যায়, তারাশঙ্কর বন্ধ্যপাধ্যায়।

কামরুল: আচ্ছা, আপনি বর্তমানে তরুণ কবিদের প্রতি, আপনি কী বলবেন তারা যে কবিতা লেখে, এর মান সম্পর্কে আপনি কোনো কিছু বলবেন?

তুষার: আমি তো নিজেই তরুণ, আমি তরুণদের সম্পর্কে কী বলবো!

কামরুল: না, বর্তমানে যারা লিখছে আর কি, নতুন, একেবারে নতুন। এইবার বইমেলায় অনেক নতুন কবি এসছে আর কি। তাদের কবিতাগুলো দেখে আপনি কী বলবেন? তারা কি মানটা বজায় রাখছে, কি রাখছে না?

তুষার: এইটা খুব কঠিন প্রশ্ন আমার জন্যে, এতক্ষণ সব সহজ প্রশ্ন ছিল। এটা কঠিন এই জন্যেই, আমি তো সব তরুণের সব কবিতা পড়তে পারি না, কাজেই তাদেরকে উপদেশ দেওয়ার আগে তাদের বইগুলা আগে আমার পড়তে হবে। তাদের লেখাগুলা মাঝেমাঝে দৈনিক পত্রপত্রিকায় ছাপা হয়, লিটলম্যাগে ছাপা হয়, টুকটাক আমি পড়ি। সবার নামও জানি না। কালেক্ট করার চেষ্টা করি। কাউকে কাউকে ব্যক্তিগতভাবে চিনি। তো কবিকে আসলে একজন কবির কোনো উপদেশ দেওয়ার ব্যাপার নেই। কারণ হচ্ছে, সব কবিই যে প্রকৃত কবি সে জানে কী করে কবি হয়ে উঠতে হয় এবং কী করে কবিতা লিখতে হয়। বাদবাকিরা যারা অন্য সিনিয়র কবির পরামর্শ এবং উপদেশ নিয়ে চলে তারা আসলে কেউ কবি না। এটা আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি। একজন কবি তার নিজের মতো করে তার নিজের পথটা কেটে নেয়।

বাংলা একাডেমি বইমেলা, ১০/২/২০১৬

ইউটিউব ভিডিও

About Author

কামরুল হাসনাত
কামরুল হাসনাত

স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে গনযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়ছেন। ‌'রেডিও আমার' এ নিউজ প্রেজেন্টার ও রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত।