ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক ম্যানেজার হোসে মোরিনহোকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে বরখাস্ত করা হয়।

ফুটবল কোচ ও ম্যানেজার হোসে মোরিনহো বলেছেন, অনেক সময় ‘ভালো মানুষ’ ফুটবল ম্যানেজাররাও শেষ পর্যন্ত তাদের ক্লাবের হাতের পুতুল হয়ে যেতে পারে।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক ম্যানেজার হোসে মোরিনহোকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে বরখাস্ত করা হয় এবং তার জায়গায় অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসাবে দায়িত্ব দেওয়া হয় ওলে গুনার সোলশার-কে। তিন মাস পরে নরওয়েজিয়ান এই কোচের নিয়োগ স্থায়ী করে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

“আমি সেই ‘ভাল মানুষ’ হতে চাই না”, ফরাসি সংবাদ পত্র লে’কিপ-কে এই কথা বলেছেন মোরিনহো।

মোরিনহো বলেন, কারণ ওই ভালো মানুষটা তিন মাস পরে হাতের পুতুল হয়ে যায় এবং এর পরিণতি ভালো হয় না।  আপনি যখন প্রায় একদম একা, এই পরিস্থিতিতে আপনার কাছের ক্লাবের সাপোর্টও আপনার নাই, নির্দিষ্ট কয়েকজন খেলোয়াড়ও কোচের বিরুদ্ধে, ভালো মানুষটা তখন কে?

ইউনাইটেডের ৪৬ বছর বয়সী সাবেক স্ট্রাইকার সোলশার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে দায়িত্ব গ্রহণ করার পরে প্রথম ১১টা ম্যাচের ১০টাতে জয়লাভ করেছেন, কিন্তু গত মার্চে দীর্ঘকালীন দায়িত্ব গ্রহণের পরে সেই অবস্থা নাটকীয়ভাবে বদলে গেছে।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ বাদ দিয়েই, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তাদের সর্বশেষ নয়টি লিগ ম্যাচের মধ্যে মাত্র দুটিতে জয়লাভ করেছে। প্রিমিয়ার লিগের টেবিলে ষষ্ঠ অবস্থানে থেকে তারা এই সিজন শেষ করেছে, তার মানে আগামি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তারা আর অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

মোরিনহো ২০১৭-২০১৮ মৌসুমের লিগে ইউনাইটেডকে দ্বিতীয় স্থানে নিয়ে গিয়েছিলেন। মোরিনহো দৃঢ়ভাবে বলেছেন সেটা ওই ক্লাবে তার ‘শ্রেষ্ঠ অর্জন’ ছিল,  মানুষ এখন সেটা বোঝে।

ফরাসি পত্রিকাকে দেওয়া ওই সাক্ষাৎকারে মোরিনহো আরো বলেছেন, “আমি যখন বলি যে দ্বিতীয় সিজনটা অসাধারণ ছিল, আমি এটা বলি কারণ সম্ভাবনা এবং লক্ষ্য একসাথে মিলেছিল। সেটা অর্জন করার জন্য আমি শক্তভাবে চিপে ধরেছিলাম, একটা কমলালেবুর মত।

৫৬ বছর বয়সী পর্তুগীজ এই কোচ আরো জানিয়েছেন, ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে তাদের ‘সংগঠন ও উচ্চাভিলাষ’ উভয়ই এই ক্লাবের সমস্যার অংশ, এবং সেই সমস্যাগুলি ফ্রান্সের মিডফিল্ডার পল পগবার মতো খেলোয়াড়দের জন্য সুবিধাজনক হয়নি।

সাবেক চেলসি এবং রিয়াল মাদ্রিদ বস মোরিনহো এবং ২৬ বছর বয়সী বিশ্বকাপ জয়ী পল পগবার সম্পর্ক যে খারাপ যাচ্ছিল সেটা নিয়মিতই শোনা গেছে। এই মৌসুমের শুরুতে অনুশীলনের সময় মাঠে দুইজনের প্রকাশ্য বিবাদের ঘটনাও এর মধ্যে আছে।

মোরিনহোর কথায়, সেখানে বেশ কিছু সমস্যা আছে: আপনি বলতে পারেন খেলোয়াড়দের নিয়ে সমস্যা, সংগঠনের সমস্যা, তাদের উচ্চাভিলাষের সমস্যা।

মোরিনহো বলেছেন, আপনি যদি জিজ্ঞাসা করেন পলই একমাত্র কারণ কিনা, তাহলে আমি শুধু বলব যে আমি এটাতে ‘হ্যাঁ’ বলতে পারব না।

সূত্র: বিবিসি স্পোর্ট