page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
লাইফস্টাইল

৫ বছরের মধ্যে দেউলিয়া হতে পারে সৌদি আরব—আইএমএফ

সৌদি আরবের সঞ্চিত নগদ অর্থের পরিমাণ দ্রুত কমছে। তেলের দাম কমার কারণে সৌদি আরবের কাছে বর্তমানে আগামী ৫ বছরের অর্থনৈতিক সম্পদ আছে। ইন্টারন্যাশনাল মানিটারি ফান্ড বা আইএমএফের একটি রিপোর্টে এ কথা বলা হয়েছে।

প্রতি বছর অক্টোবরে আইএমএফের ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক অ্যান্ড ফিন্যানশিয়াল সার্ভে প্রকাশ করা হয়। এবারের সার্ভে রিপোর্টে বলা হয়েছে সৌদি আরবের সরকারি কোষাগারের সম্পদের পরিমাণ ২০১৫ সালে ২১.৬ শতাংশ ও ২০১৬ সালে ১৯.৪ শতাংশ কমবে, এটা ২০১৪ তে কমে যাওয়া -৩.৪ শতাংশ থেকে অনেক বেশি।

বর্তমানে বিভিন্ন বিদেশী কোষাগারে সৌদি আরবের আছে ৬৫৪.৫ বিলিয়ন ডলার, কিন্তু এই নগদ অর্থও দ্রুত কমে যাচ্ছে।

আল জাজিরার ভাষ্যমতে, সৌদি আরবের মনিটারি এজেন্সি বিদেশের বিভিন্ন অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানে জমা অর্থ থেকে ৭০ বিলিয়ন ডলার উঠিয়েছে এবং তেলের দাম কমার পর থেকে ৭৩ বিলিয়ন ডলার ক্ষতির মুখোমুখি হয়েছে। সৌদি আরবের আয়ের ৯০ শতাংশ আসে তেল থেকে।

এ বছর বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজের রাজ্যাভিষেকে আনন্দ উদযাপনের জন্য সৌদি আরব ৩২ বিলিয়ন ডলার খরচ করেছে।

salman-1

সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ (জন্ম. ১৯৩৫)

২০১৫ সালে সৌদি আরব সামরিক খাতে ৮০.৮ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করে এবং রাশিয়াকে অতিক্রম করে সর্বোচ্চ সামরিক ব্যয়ের দিক থেকে বিশ্বের তিন নাম্বার দেশের অবস্থানে আসে। তাছাড়া, ইয়েমেনে যুদ্ধের ব্যয় বহন করতে হয়েছে সৌদি আরবকে এবং তা কমার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।

আইএমএফের ভাষ্য মতে, মনে করা হচ্ছে ২০১৫ সালে তাদের জিডিপি ২০ শতাংশ কমবে। আইএমএফের মধ্যপ্রাচ্যের পরিচালক মাসুদ আহমেদ দুবাইতে সাংবাদিকদের বলেছেন, তেলের দাম কমার কারণে শুধু এ বছরেই আয় আশ্চর্যজনকভাবে কমবে ৩৬০ বিলিয়ন ডলার।

কারণ, তেলের দাম অনেক বেশি কমেছে এবং কমার হার এখনো স্থির আছে। আল জাজিরা লিখেছে, মনে করা হচ্ছে সৌদি আরব অন্যান্য তেল রপ্তানিকারকদের সাথে যোগ দিবে এবং আসলেই বাজেট কমিয়ে আনবে।

কিন্তু কোম্পানিগুলি এবং গ্রাহকেরা যদি বাজেট কমানোর প্রতিক্রিয়ায় কেনা আরো কমিয়ে দেয় এবং বিনিয়োগ করা কমিয়ে দেয় তাহলে বাজেট কমানোর ফলাফল বিপরীত হতে পারে।

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক