page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
ব্লগ

জন এফ কেনেডি হত্যায় লিন্ডন বি জনসন, অভিযোগ স্ত্রী জ্যাকুলিন কেনেডির

১৯৬৩ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডির হত্যার কলকাঠি নেড়েছেন লিন্ডন বি জনসন, সে সময় এমন অভিযোগ করেছিলেন কেনেডির স্ত্রী জ্যাকুলিন কেনেডি।

জন এফ কেনেডি হত্যার একমাস পরে দেয়া চাঞ্চল্যকর সাক্ষাৎকারটিতে এমনই অনেক চমকপ্রদ তথ্য আছে বলে জানিয়েছে এবিসি।

ওই সাক্ষাৎকারে মিসেস কেনেডি তার স্বামীর হত্যা বিষয়ে কথা বলেন। আততায়ী লি হার্ভে অসওয়াল্ডের গুলিতে মারা যান প্রেসিডেন্ট কেনেডি। মিসেস কেনেডি বিশ্বাস করতেন এই হত্যার পরিকল্পনা করেছিলেন পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্ট লিন্ডেন বি জনসন এবং টেক্সাসের টাইকুন চক্র।

jfk 3

জন এফ কেনেডি ও জ্যাকুলিন কেনেডি

মিসেস কেনেডি (যিনি পরে গ্রিক ধনকুবের অ্যারিস্টটল ওনাসিসকে বিয়ে করে জ্যাকি ওনাসিস নামে পরিচিত হন) দাবি করেন এই হত্যাকাণ্ড আরো বড় ষড়যন্ত্রের অংশ, যেটার লক্ষ্য ছিল পদাধিকার বলে জনসনকে প্রেসিডেন্ট বানানো।

লিন্ডন জনসন মার্কিন কংগ্রেসের একজন সদস্য ছিলেন। কেনেডি নিহত হবার পর তার মেয়াদের বাকি সময়টা লিন্ডন জনসনই প্রেসিডেন্ট হিসেবে ছিলেন। পরে তিনি নির্বাচিত প্রেসিডেন্টও হন।

খ্যাতনামা ঐতিহাসিক আর্থার স্কেলসসিঙ্গার জুনিয়ারকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সদ্য বিধবা ফার্স্ট লেডি এমনই জানিয়েছিলেন।

এই সাক্ষাৎকার টেপটি বোস্টনের কেনেডি লাইব্রেরির ভল্টে সিলগালা অবস্থায় রাখা হয়েছিল এই শর্তে যে মিসেস কেনেডির মৃত্যুর ৫০ বছর পর তা প্রকাশ করা যাবে।

জ্যাকির ক্যান্সারে মৃত্যুর এক বছর পর তার কন্যা ক্যারোলিন টেপটি আগেই প্রকাশ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। এবিসিতে কেনেডি পরিবারের উপর নির্মিত টিভি সিরিজটি কেনেডি পরিবারের সদস্যদের নানা ভাবে বিপর্যস্ত করেছে বলে জানা যায়।

jaci5

জন এফ কেনেডি ও জ্যাকুলিন কেনেডি

যুক্তরাষ্ট্রের এবিসি নেটওয়ার্কের সাথে এই নিয়ে একটা সম্মতিপত্রও তিনি সাইন করেন। তার শর্ত কেনেডিকে নিয়ে যে টিভি সিরিজটি এবিসি নেটওয়ার্ক প্রচার করছিল সেটা বন্ধ হলে তিনি এই আলোড়ন সৃষ্টিকারী টেপটির প্রচারস্বত্ব এবিসিকে দেবেন।

প্রায় দশ মিলিয়ন ডলারে নির্মিত টিভি সিরিজটিতে জ্যাকি কেনেডির ভূমিকায় অভিনয় করছিলেন খ্যাতনামা মার্কিন অভিনেত্রী কেটি হোমস। টিভি সিরিজটির পটভূমি ১৯৩০ থেকে কেনেডি পরিবারের রাজনৈতিক ও অভ্যন্তরীণ নানা ঘটনা নিয়ে। ক্যারোলিনের সাথে চুক্তির পর শর্ত অনুযায়ী এটির সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে এবিসি নেটওয়ার্ক।

ডেইলি মেইলের বরাতে জানানো হয়, এবিসি নেটওয়ার্কের কর্তা-ব্যক্তিরা এই সাক্ষাৎকারে জনসন লিন্ডনের বিরুদ্ধে যে জ্যাকি জানিয়েছেন, সেটার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ধারণা করা হয়, এই সাক্ষাৎকারে জ্যাকি হোয়াইট হাউসে ইন্টার্ন হিসেবে কর্মরত উনিশ বছরের এক তরুণীর সাথে জন এফ কেনেডির প্রেমের বিষয়েও বলেছিলেন। জ্যাকি জানিয়েছিলেন তাদের বেডরুমে ওই তরুণীর অন্তর্বাসও তিনি পেয়েছিলেন।

জ্যাকি কেনেডি এই সাক্ষাৎকারে তার নিজের একাধিক প্রেমের সম্পর্কেও বলেন। তার স্বামীর অবিশ্বস্ততার বদলা হিসেবে তিনি হলিউড তারকা উইলিয়াম হোল্ডেন ও ফিয়াটের প্রতিষ্ঠাতা গিয়ানো অ্যাগলেনির সাথে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন বলে জানান।

আরো দাবি করা হয়, এই সাক্ষাৎকারে জ্যাকি জানিয়েছিলেন যে প্রেসিডেন্ট কেনেডির মৃত্যুর এক সপ্তাহ আগে তারা আরো সন্তান নেবার ব্যাপারে একমত হয়েছিলেন।

জন ফিটজেরাল্ড কেনেডি (১৯১৭-১৯৬৩)

এই বিষয়ে কেনেডি পরিবারের পারিবারিক ঐতিহাসিক, লেখক এডওয়ার্ড ক্লেইনের বক্তব্যও উল্লেখযোগ্য। তার কথায়, “জ্যাকি হোয়াইট হাউসে তার ছেলেমানুষী আচরণ, বিশেষত তার বদলা নেবার এই সম্পর্কগুলি নিয়ে অনুতপ্ত ছিলেন।” ওই পারিবারিক ঐতিহাসিকের মতে, সেই সময়ে তার নিজের বিভিন্ন প্রেমের সম্পর্ক দিয়ে স্বামীকে উদ্বিগ্ন করতে পারলে জ্যাকি আনন্দিত হতেন, যেগুলি একান্তই তার বদলা নেবার প্রবৃত্তি থেকে করা।

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক