page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
ব্লগ

ঘরে বসে নেইল আর্টের ৭টি সহজ পদ্ধতি

আপনি ঘরে বসে কীভাবে নেইল আর্ট করবেন তা নিচের ভিডিও ও বর্ণনা থেকে বুঝতে পারবেন।  একেক দিন একেক ভিডিও দেখে তা প্র্যাকটিস করতে পারেন।  আর নেইল আর্টের জন্যে প্রয়োজনীয় টুলস কী কী লাগতে পারে তা পাবেন এই লিংকে: ঘরে বসে নেইল আর্টের ২৩টি টুলস

 

নখ সাজাবেন যেভাবে

প্রথমে হাত দুটিকে ঘরে বসেই মেনিকিউর করে নিন। হ্যান্ড ক্রিম/লোশন লাগান। নেইল কাটার দিয়ে নখে পছন্দমত যে কোন শেপ করে নিন। নেইল ফাইল দিয়ে ঘষে নখের ধারালো অবস্থা দূর করুন।

বেইস কোট নেইল পলিশ দিয়ে সব নখগুলোকে একবার পলিশ করুন। এবার পছন্দমত বেইস নেইল পলিশ তিন টানে প্রতি নখে দেবার চেষ্টা করুন। পোশাকের রঙের সাথে মিল রেখে একাধিক রঙের নেইল পলিশ ব্যবহার করতে পারেন। কনট্রাস্ট রঙও ভালো লাগবে।

নেইলপলিশের রঙ হালকা হলে একবার শুকানোর পর আরেকবার লাগিয়ে নিন। এতে নখের রঙ গাঢ় দেখাবে। নখের ‌উজ্জ্বলতা বাড়াতে সবশেষে একবার টপকোট নেইল পলিশ লাগিয়ে নিন।

কটনবাডে রিমুভার লাগিয়ে নখের পাশে চামড়ার উপর লেগে থাকা নেইল পলিশ মুছে ফেলুন। একই ভাবে পায়ের নখও সাজাতে পারেন।

নিচে যারা একেবারেই নতুন নেইল আর্ট করছেন তাদের জন্য সহজ কয়েকটি নেইল আর্ট দেখানো হলো:


১. একুরিয়াম নেইল আর্ট

যা যা লাগবে 

ফেক নেইল ১ সেট, ছোট চুমকি ২ পদের, ছোট পুতি ২ পদের, গ্লু, তুলি ১ টি, গুড়োজরি, ড্রপার ১টি।

এখন নিচের ধাপগুলি অনুসরণ করুন

—ফেক নেইল ১ হাতে পরে নিন;

—নখের যে পাশ ফাঁকা সেখান থেকে নখের ভিতর ছোটো ছোটো চুমকি, পুতি, গুড়োজড়ি অল্প করে লাগিয়ে নিন;

—ড্রপার দিয়ে নখের ভিতর কয়েক ফোটা পানি দিন;

—তুলিতে অল্প গ্লু নিয়ে ফাঁকাটুকু আটকে দিন। ব্যস তৈরি হয়ে গেল একুরিয়াম নেইল আর্ট;

—সবগুলো ফেক নখ এভাবে সাজান;

—তুলি দিয়ে আসল নখের ওপর গ্লু লাগান। এবার ফেক নখটি ভাল করে চেপে লাগিয়ে নিন।

২. স্টাম্পিং নেইল আর্ট

প্রয়োজনীয় উপকরণ

স্ট্যাম্পার, টেমপ্লেট, স্ক্রাপার, রিমুভার প্যাডস, নেইল পলিশ ১/২টি, বেইস কোট ও টপকোট নেইল পলিশ।

—নখের উপর বেসকোট পলিশ লাগান।

—টেমপ্লেটের যে কোন একটি ডিজাইন বেছে, তাতে পছন্দমত রঙের নেইল পলিশ লাগিয় নিন। নেইল পলিশ আবশ্যই ঘন হতে হবে।

—একটি স্ক্র্যাপার হাতে নিন। স্ক্র্যাপারটি দিয়ে টেমপ্লেটের উপর দেয়া নেইল পলিশ খুব দ্রুত ডান থেকে বামে টেনে নিয়ে যান।

—স্টাম্পার দিয়ে টেমপ্লেটের উপর টিপুন, এটাতে নকশা উঠে আসবে।  নখে নকশা দিতে স্ট্যাম্পারটি দ্রুত নখের উপর বসান এবং একটু চাপ দিয়ে ধরে ডান থেকে বামে ঘুরিয়ে আনুন। দেখুন নকশাটি নখে কী চমৎকার লেগে গেছে।

—আরো একবার টপকোট নেইল পলিশ লাগান।

—সবগুলি নখে একই পদ্ধতি ব্যবহার করুন।

—একাধিক রঙ ব্যবহার করতে পারেন।

—রিমুভার প্যাডস দিয়ে টেমপ্লেট ও স্ক্র্যাপার মুছে রাখুন পরে ব্যবহারের জন্য।


৩. স্কচ টেপ নেইল আর্ট

এটি সহজ নেইল আর্ট। খুব সহজেই সবাই স্কচ টেপ দিয়ে নখে বিভিন্ন ধরনের নকশা করতে পারবেন। নতুনদের জন্য এটি একেবারেই সহজ পদ্ধতি।

 

যা লাগবে

পছন্দমত বেইস নেইল পলিশ কয়েকটি, স্কচ টেপ, ছোট কাচি, বেইস কোট ও টপ কোট নেইল পলিশ, রিমুভার, কটন বাড।

—নখে বেইস কোট নেইল পলিশ লাগান।

—স্কচ টেপ কাচি দিয়ে কেটে যে কোনো নকশা করে নখে লাগিয়ে দিন।

—অন্য আরেকটি রঙের নেইল পলিশ দিয়ে স্কচ টেপের উপর থেকে ফাঁকা অংশ ভরিয়ে নিন।

—স্কচ টেপ দ্রুত তুলে ফেলুন

—নখের পাশে চামড়ায় লেগে থাকা বাড়তি নেইল পলিশ কটন বাডে রিমুভার লাগিয়ে আলতো করে তুলে ফেলুন।

—সব শেষে নখ চকচকে করতে টপ কোট নেইল পলিশ দিয়ে শেষ করুন।

—নকশা অনুযায়ী একাধিক রঙ ব্যবহার করতে পারেন।


৪. ওয়াটার মার্বেল নেইল আর্ট

পানি দিয়ে করা নেইল আর্টের পদ্ধতি সহজ ও সুন্দর। যে কেউ এই পদ্ধতিতে নখ বর্ণিল করে উপস্থাপন করতে পারবেন। এ পদ্ধতিও নতুনদের জন্যে একেবারেই সহজ।

 

যা লাগবে

ছোট একটি বাটি/ওয়ান টাইম কাপ, পানি, নেইল পলিশ বিভিন্ন রঙের ৩/৪ টি, কাচি , পেনসিল/কাঠি, কার্ড বোর্ড, স্কচ টেপ, কটন বাড, রিমুভার বা রিমুভার পেন।

—নখে বেইস কোট লাগিয়ে নিন।

—স্কচ টেপ বড় বড় টুকরা করে কেটে নিন। টুকরা করা স্কচ টেপ দিয়ে নখের চারপাশে থাকা আঙুলের চামড়া ভাল করে পেচিয়ে নিন, যাতে নেইল পলিশ লেগে না যায়।

—কাপে নরমাল পানি নিন। নেইল পলিশ একে ফোটা করে নিয়ে পানিতে ফেলুন। প্রথম ফোটা ছড়িয়ে গেলেও পরেরগুলি কমতে থাকবে।

—কাঠি দিয়ে পানিতে থাকা রঙের উপর ইচ্ছামত দাগ কাটুন/ডিজাইন করুন।

—স্কচ টেপ প্যাচানো আঙুল ডিজাইন করা পানির মধ্যে দিয়ে রাখুন ও চারপাশের বাড়তি নেইল পলিশ কাঠি দিয়ে সরিয়ে ফেলুন।

—এখন পানি থেকে হাত উঠিয়ে নিয়ে কাচি দিয়ে কেটে স্কচ টেপ তুলে ফেলুন।

—কটন বাডে রিমুভার লাগিয়ে নখের চারপাশ পরিষ্কার করে নিন।


৫. নেইল পেন আর্ট

যা লাগবে

কয়েকটি  বিভিন্ন রঙের নেইল পলিশ, নেইল আর্ট পেন এক সেট, সক অফ বেইস কোট ও টপ কোট নেইল পলিশ।

—নখে বেইস কোট নেইল পলিশ লাগিয়ে নিন।

—একটি পছন্দমত রঙের নেইল পলিশ দিয়ে নখগুলি পলিশ করুন। ইচ্ছে হলে প্রতি নখে আলাদা রঙের নেইল পলিশ দিতে পারেন।

—নেইল আর্ট পেনের প্যাকেট থেকে পছন্দ মত রঙের কলম নিয়ে ইচ্ছামত নকশা করুন। নখে একাধিক রঙ ব্যবহার করতে পারেন।

—সবশেষে টপ কোট নেইল পলিশ দিন।


৬. ব্রাশ নেইল আর্ট

যা লাগবে

নেইল আর্ট ব্রাশ এক সেট,  নেইল পলিশ ৩/৪টি, রিমুভার, কটন বাড, বেইস কোট ও টপ কোট নেইল পলিশ।

—সবগুলি নখে বেইস কোট নেইল পলিশ দিন।

—এর ওপর পছন্দ মত রঙিন নেইল পলিশ দিয়ে শুকিয়ে নিন।

—ছড়ানো ব্রাশটিতে যে কোনো একটি রঙের নেইল পলিশ লাগিয়ে আড়াআড়ি ভাবে কয়েক বার টান দিন। এখন শুকিয়ে নিন ভাল ভাবে। এরপর আরেকটি রঙের নেইল পলিশ দিয়ে একই ভাবে ব্রাশ করুন। এভাবে ২/৪ রঙ দিয়ে করতে পারেন।

—টপ কোট নেইল পলিশ দিয়ে ব্রাশ নেইল আর্ট শেষ করুন।


৭. বিডস নেইল আর্ট

যা লাগবে

গোল্ডেন কালার বিডস (বিভিন্ন রঙ ও ডিজাইনের পুঁতি দেয়া যাবে), বেইস নেইল পলিশ গোল্ডেন-কালো, টপ কোট ও বেইস কোট নেইল পলিশ, টুথপিক ১টি।

—প্রথমে নখে বেইস কোট নেইল পলিশ লাগান।

—কালো রঙের বেইস নেইল পলিশ দিন।

—টপকোট নেইল পলিশও লাগিযে নিন।

—নখের গোড়ার দিক থেকে নকশা করে গোল্ডেন নেইল পলিশ দিয়ে এঁকে নিন। কাঠিতে সামান্য একটু নেইল পলিশ লাগিয়ে নিয়ে নকশার উপর দ্রুত পুঁতি লাগান তিন ধাপে।

—বিডসের উপর আরেকবার টপ কোট নেইল পলিশ দিয়ে শেষ করুন (এতে বিডস আটকে থাকবে ও চকচকে দেখাবে)।

—প্রতিটি নখে একই নকশা বা আলাদা নকশা করতে পারেন।

 

নখের যত্নে কিছু সাবধানতা

১. কিউটিক্যাল কেয়ার (ছবি-kiss)
২. রিপেয়ার
৩. গ্রোথ
৪. স্টেথনিং

সতর্কতা
শক্ত কোনো কিছু, ধাতব পদার্থ, সুচালো, ধারালো কিংবা নখ দিয়ে খুঁচে নখের শুকনো নেইল পলিশ কখনোই তুলবেন না। এতে নখে আঘাত লেগে নখ ফেটে বা ভেঙে যেতে পারে কিংবা যে কোনো ধরনের রক্তাক্ত ক্ষতি হতে পারে। অল্প করে তুলা নিয়ে তাতে রিমুভার লাগিয়ে নখের উপর আলতো করে কিছুক্ষণ চেপে রাখুন, নেইল পলিশ গলে তুলার সাথেই উঠে আসবে।

ড্রাইয়ার ল্যাম্প সতর্কতা

প্রলিড নেইল ল্যাম্প/ড্রাইয়ার ল্যাম্প
nail-8এটি একটি স্বতন্ত্র ও নিরাপদ জেল ল্যাম্প। উচ্চমানের প্রযুক্তিতে করা এই যন্ত্রটি খুব অল্প সময়ের মধ্যে নেইল পলিশ দ্রুত শুকিয়ে ফেলে। এটাতে প্রয়োজন মত তাপ দিয়ে দীর্ঘস্থায়ী এবং চকচকে ফিনিশিং তৈরি করা যায়। তাপমাত্রা আলোর উজ্জ্বলতা ধরে রাখে লাইট পরিবর্তন করতে হয় না। নখে জেল লাগিয়ে আঙুল যন্ত্রটির মধ্যে দিলেই (২০/৩০ সে:) জেল শুকিয়ে যায়।

সতর্কতা
মেশিনটি পানি বা পানির কাছাকাছি স্থানে ব্যবহার করা যাবে না। পানির মধ্যে মেশিনটি পড়ে গেলে সাথে সাথে প্লাগটি খুলে ফেলতে হবে। ব্যবহারের পর এর লাইটটি খালি হাতে স্পর্শ করবেন না। গরমে আপনার  হাত পুড়ে যেতে পারে। ব্যবহারের পর মেশিনের প্লাগ সবসময় খুলে শুষ্ক স্থানে রাখবেন।

About Author

ইতিকথা আহমেদ
ইতিকথা আহমেদ

বাংলা সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ইতিকথার জন্ম বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর পটুয়াখালীতে। অনলাইনে নারীদের পোষাক ও প্রসাধন সামগ্রী বিক্রয় প্রতিষ্ঠান ‘ইতিকথা’র প্রতিষ্ঠাতা। রান্না, সাজসজ্জা ও লাইফ স্টাইল নিয়ে নিয়মিত লিখছেন।