page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
ব্লগ

ব্রাজিলে বিশ্বকাপ বিরোধী স্ট্রিট গ্রাফিত্তি — ফুটবল নয় খাদ্য!

football

ব্রাজিলিয়ানরা ক্ষুব্ধ। আট সপ্তাহ ধরে চলা অপচয়ে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার অর্থ ঢালার জন্য তারা তদের সরকারের প্রতি ক্ষুব্ধ।

তারা ক্ষুব্ধ কারণ বিশ্বকাপের জন্য যে পরিমাণ অর্থ খরচ করা হচ্ছে সেই অর্থ শিক্ষা, স্যানিটেশন, হাসপাতাল এবং তাদের পথেঘাটে ড্রাগস, অস্ত্র, সহিংসতা নির্মূল করার জন্য ভীষণভাবে দরকারি।

অনেকেই আর্টিস্টিক প্রতিবাদের মাধ্যমে যে সাধারণ মেসেজটি দেওয়ার চেষ্টা করছে সেটি হলো, ‘ফা* ফিফা’। তাদের প্রতিবাদ জোরদার করার জন্য স্ট্রিট গ্রাফিত্তি এরকম একটি উদ্যোগ।

খ্যাতিমান স্ট্রিট আর্টিস্ট পাওলো ইতোর করা সাও পাওলো স্কুলের একটি মুরাল বিশেষভাবে সোশ্যাল মিডিয়াতে সাড়া জাগিয়েছে। এতে দেখা যায় একটি অনাহারী ব্রাজিলিয়ান বাচ্চা ছেলে হাতে ছুরি এবং কাঁটাচামচ নিয়ে কাঁদছে। তার সামনে একটি প্লেটে ফুটবল পরিবেশন করা হয়েছে।

এই শক্তিশালী ছবিগুলির মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে একটি জাতির দুর্নীতি, লোভ, অবিচার নিয়ে কতটা ক্ষোভ রয়েছে তাদের দেশের মানুষদের মধ্যে।
মতান্তরে, এগুলি জোর গলায় বলে যে ব্রাজিলের মানুষ, সম্ভবত পৃথিবির সবচেয়ে সেরা ফুটবলভক্ত জাতি বিশ্বকাপ চায় না।

বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার অনেক আগে থেকেই ব্রাজিলে বিক্ষোভ এবং প্রতিবাদ শুরু হয়। সহিংস প্রতিবাদ শুরু হয় সারা দেশজুড়ে। তবে সম্ভবত সবচেয়ে বেশি প্রতিবাদ হয়েছে সাও পাওলো শহরে।

পুলিশের সাথে বিক্ষোভকারীদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ওপর লাঠি চার্জ করে টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। সাও পাওলোর সাথে সমস্ত দেশের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়ার উদ্দেশ্যে সাও পাওলোতে কয়েকদিন ধরে টানা বাস ধর্মঘট চলে।
প্রতিবাদকারীদের ভাষ্য ছিল, বিশ্বকাপ উপলক্ষে এত অর্থ ব্যয় করতে পারছে সরকার কিন্তু দেশের গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক সমস্যাগুলি নিরসনে সরকারের ভূমিকা কোথায়?

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এবং সারা বিশ্বজুড়ে বারবার প্রশ্ন উঠেছে বিশ্বকাপ ফুটবলের এত নিকট সময়ে ব্রাজিলে এই বিক্ষোভ উপেক্ষা করে কীভাবে বিশ্বকাপ আয়োজন করা সম্ভব হবে? ব্রাজিলে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হতে পারবে কি?
ব্রাজিল সরকারকে এই প্রতিবাদ চলতে থাকা সত্ত্বেও আত্মবিশ্বাসী দেখা গেছে বিশ্বকাপ আয়োজনের প্রস্তুতিতে। প্রতিবাদকারীদের দমন করতে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।

ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট ডিলমা রোজেফ বলেছেন, এই ধরনের সমস্যা সব জায়গায়ই কমন। এগুলি টুর্নামেন্টে কোনো বিঘ্ন সৃষ্টি করবে না।
বিশ্বকাপ আয়োজনের বিরোধীতা করে ব্রাজিলের কিছু গ্রাফিত্তি এবং পথচিত্র এখানে থাকছে। এগুলির মাধ্যমে তীব্র প্রতিবাদের পাশাপাশি ব্রাজিলের চলমান সমস্যা বিষয়ে সরকারের উদাসীনতার প্রতি স্যাটায়ারও রয়েছে।


২.


৩.


৪.


৫.

 

৬.

 

৭.

 

৮.

 

৯.


১০.

 

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক