page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
ব্লগ

যে সব খাবারে যৌন ইচ্ছা হ্রাস পায়!

sex-drive-less

এখনকার সময়ে অনেক পুরুষই যৌনাকাঙ্ক্ষা কম হওয়ার সমস্যায় ভুগে থাকেন। এই সমস্যার পিছনে খাদ্যাভাস বা যা খাওয়া হয় তার মারাত্মক প্রভাব থাকতে পারে। খাদ্যাভাস আপনার লিবিডোতে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। বিশেষ করে যখন বয়স বাড়তে থাকে তখন এই ক্ষতিকর প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। তাই যেসব খাবার আপনার সেক্স এর ইচ্ছা কমিয়ে দেয় বা যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে সেগুলি খাবারের তালিকা থেকে বাদ দেওয়াই ভালো।

টেস্টোস্টেরন নামে একধরনের হরমোনের মাত্রা কমে গেলে যৌন ইচ্ছা হ্রাস পায়। যেসব খাবারের কারণে এই হরমোনের মাত্রা কমে যায় সেসব খাবার খেলে পুরুষদের যৌন আকাঙ্ক্ষা কমে যেতে পারে। যৌন আকাঙ্ক্ষা স্বাভাবিক রাখতে চাইলে যেসব খাদ্য আপনার এড়িয়ে চলা উচিৎ সেরকম কয়েকটি খাদ্যের কথা এখানে থাকছে।

১) সয়া

অতিরিক্ত সয়া খেলে পুরুষদের স্তনের আকার বেড়ে যায়। সয়া থেকে যেসব খাবার তৈরি হয়, যেমন সয়া মিল্ক বা সয়া সস এগুলি ব্যাপকভাবে টেস্টোস্টেরোনের মাত্রা কমিয়ে দেয়। ফলে যৌন আকাঙ্ক্ষা কমে যায়। এরকম একটি তথ্য দিয়েছে ইউরোপিয়ান জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশন।

গবেষকরা দেখেছেন যে, যারা দিনে ১২০ গ্রাম সয়া খায় তাদের শরীরে টেস্টোস্টেরোন কমে যায়। আর যেসব পুরুষ সন্তান গ্রহণের কথা ভাবছেন তারা খাদ্য তালিকা থেকে সয়া একদম বাদ দিয়ে দিন। সয়া শুক্রাণুর পরিমাণও কমিয়ে দেয়।

২) ক্র্যাকার্স


যেকোনো ধরনের রিফাইন কার্বোহাইড্রেট বা শর্করা যৌন মিলনের সময় পুরুষদের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। ক্র্যাকার্সে এই রিফাইন শর্করা সবচেয়ে বেশি পরিমাণে থাকে। অতিরিক্ত রিফাইন শর্করা টেস্টোস্টেরোনের মাত্রাও কমিয়ে দেয়। তাছাড়া রিফাইন করা শর্করায় যে চিনি থাকে তা ওজন বাড়ায়। এই চিনিও টেস্টোস্টেরোনের মাত্রা কমিয়ে দেয়। বিপরীতে শরীরে এস্ট্রোজেনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়।

৩) অতিরিক্ত অ্যালকোহল


অতিরিক্ত মদ খেলে তার পরিণাম সাংঘাতিক। যৌন জীবনে মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে অতিরিক্ত অ্যালকোহল। ইরেক্টাইল সমস্যা সহ, ঠিকভাবে অর্গাজম না হওয়া এবং মিলনের শুরুতেই দ্রুত বীর্যপাতের যাওয়ার কারণ হতে পারে অতিরিক্ত মদ পান করা। আর তাছাড়া অ্যালকোহল আর রিচ ফুড সবসময় আপনাকে তন্দ্রাচ্ছন্ন করে রাখে, ফলে আপনি সেক্সের ব্যাপারে আর উৎসাহ বোধ করেন না।

৪) রেড মিট বা লাল মাংস

যেসব খাবারে অতিরিক্ত হরমোন বা অ্যান্টিবায়োটিক আছে সেগুলি পরিহার করা উচিৎ। যেমন কিছু রেড মিটে প্রচুর হরমোন আছে। ফলে বেশি রেড মিট খেলে আপনার শরীরের প্রাকৃতিক হরমোনে ভারসাম্যহীনতা তৈরি হয়।

রেড মিট নিয়ন্ত্রিত মাত্রায় খেলে তা বরং উপকারেই লাগে। রেড মিট জিঙ্ক এবং প্রোটিনের অন্যতম উৎস। প্রোটিন এবং জিঙ্ক উভয়ই ফ্যাট কমায় এবং পেশী গঠন করে।

৫) অতিরিক্ত খাবার খাওয়া


অতিরিক্ত খাওয়া দাওয়া করলে খুব স্বাভাবিকভাবেই আপনার ওজন বেড়ে যাবে। আর ওজন বেড়ে গেলে যৌনতার ইচ্ছা কমে যায়। যেকোনো ধরনের খাবার অতিরিক্ত খাওয়াই যৌন আকাঙ্ক্ষার সবচেয়ে বড় শত্রু।

খাওয়া দাওয়ার ওপরে মানুষের বয়স বাড়াটাও নির্ভর করে। যাদের ওজন বেশি, ৩৫ থেকে ৬০ বছরে তাদের বয়স দ্রুত বেড়ে যায়। শরীর সময়ের আগেই বৃদ্ধ হয়ে পড়ে। বিশেষ করে যারা অতিরিক্ত চাপে থাকেন, অনিয়মিত ও অনিয়ন্ত্রিত খাবার খান, ব্যায়াম করেন না তাদের ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটা বেশি ঘটে।

একটি ভালো ডায়েট সমান সমান ভালো সেক্স। যার ডায়েট সিস্টেম যত উন্নত সে যৌনতায়ও ততটাই সুখী।

কিছু নির্দিষ্ট খাদ্যের কারণে ঘাম, মূত্র, বীর্য নিঃসরণে সমস্যা তৈরি হয়। অ্যাসপারাগাস, রসুন ও কোনো কোনো মসলা যেগুলি গন্ধ তৈরি করে এমন খাদ্য ও দুগ্ধজাত সামগ্রী এসব নিঃসৃত পদার্থে অস্বস্তিকর গন্ধ ও স্বাদ নিয়ে আসে।

আনারস, ভ্যানিলা ফ্লেভার দেওয়া খাদ্যদ্রব্য আবার নারী এবং পুরুষ উভয়ের মধ্যেই পারস্পরিক আকর্ষণ বৃদ্ধি করে।

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক