page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল
ব্লগ

স্পেস থেকে ২৩৪ সিগন্যাল শনাক্ত, বিজ্ঞানীদের ধারণা এলিয়েনদের

sky-1

অ্যাস্ট্রোনোমার বা মহাকাশ বিজ্ঞানীরা স্টার ক্লাস্টার বা বিভিন্ন সৌর মণ্ডল থেকে আসা ২৩২টি সিগন্যাল শনাক্ত করেছেন। বিজ্ঞানীরা মনে করছেন এইসব সিগন্যাল এলিয়েনদের থেকে আসছে।

পাবলিকেশন্স অব দ্য অ্যাস্ট্রোনোমিকাল সোসাইটি অব দ্য প্যাসিফিকে প্রকাশ হওয়া একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পর্যবেক্ষণ করা যায় এমন ২.৫ মিলিয়ন স্টার বা নক্ষত্রের মধ্য থেকে ২৩৪টি নক্ষত্র থেকে আসা অদ্ভুত ধরনের আলোক রশ্মি বিশ্লেষণ করা হয়েছে।

এই প্রতিবেদনটির অথর হচ্ছেন কুইবেকের লাভাল বিশ্ববিদ্যালয়ের এরমানো এফ. বোরা ও এরিক ট্রটিয়ার। এই প্রতিবেদনের শেষে তারা বলেছেন এই সিগন্যাল এলিয়েনদের থেকে আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

বোরা এবং ট্রটিয়ার এই প্রতিবেদনে লিখেছেন, আমরা দেখেছি যে, যেসব সিগন্যাল শনাক্ত করা হয়েছে সেগুলি আগের গবেষণাগুলিতে এলিয়েনদের সিগন্যাল নিয়ে যে রকম অনুমান করা হয়েছিল পুরোপুরি সে রকম আকারের। সুতরাং এই হাইপোথিসিসের সাথে তা মিলে যায়।

তারা আরো উল্লেখ করেছেন যে তাদের এই হাইপোথিসিস এক্সট্রাটেরেস্ট্রিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা পৃথিবীর বাইরের বুদ্ধিমান প্রাণীর অস্তিত্বের সাথে আরো একটি কারণে সঙ্গতিপূর্ণ। অসংখ্য নক্ষত্রের মধ্যে সামান্য কিছু সংখ্যক নক্ষত্র থেকে এই অদ্ভুত ধরনের সিগন্যাল আসছে। এই হাইপোথিসিস বা এই ধারণাতে আরো দাবি করা হয়েছে যে বুদ্ধিমান প্রাণীরা তাদের অস্তিত্ব জানান দেওয়ার জন্য রেডিও ওয়েব ব্যবহার না করে আরো উন্নত ধরনের আলোকরশ্মি বা সিগন্যাল ব্যবহার করবে।

sky-2

নিউ মেক্সিকোর সানস্পটে দ্য সোলান ডিজিটাল স্কাই সার্ভে টেলিস্কোপ।

নিউ মেক্সিকোর সানস্পটের ৮ ফুট ডায়ামিটার বিশিষ্ট সোলান ডিজিটাল স্কাই সার্ভে নামের একটি টেলিস্কোপের ডাটা বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা প্রাকৃতিক বা ন্যাচারাল সিগনাল থেকে এই সিগনালগুলিকে আলাদাভাবে শনাক্ত করেছেন।

তবে, স্বাভাবিকভাবেই এই হাইপোথিসিস নিয়ে কিছু সংশয় আছে। প্রকাশিত প্রতিবেদনটির লেখকরাও স্বীকার করেছেন এই হাইপোথিসিস নিয়ে আরো কাজ করা দরকার। এই ডাটাগুলিকে অন্য আরো দুটি টেলিস্কোপের ডাটার সাথে তুলনা করে মিলিয়ে দেখতে হবে এবং এর পিছনে সম্ভাব্য কোনো প্রাকৃতিক কারণ আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে হবে।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, যদিও খুব সামান্য, তবে সম্ভাবনা আছে যে উজ্জ্বল গ্যালাকটিক স্টারের সামান্য অংশ থেকে তৈরি হওয়া খুবই অদ্ভুত ধরনের কেমিক্যাল কম্পোজিশন থেকে এই সিগন্যালগুলি আসছে।

মহাবিশ্বে বুদ্ধিমান প্রাণীর অস্তিত্ব অনুসন্ধানের জন্য কিছুদিন আগে ব্রেকথ্রু লিসেন নামে ১০০ মিলিয়ন ডলার বাজেটের একটি প্রজেক্ট শুরু হয়েছে। মার্ক জাকারবার্গ এবং স্টিফেন হকিং এই প্রজেক্টে সহযোগিতা করছেন। এই প্রজেক্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে এই সিগন্যাল নিয়ে আরো গবেষণার প্রয়োজন আছে।

ব্রেক থ্রু লিসেন প্রজেক্টের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই বিশেষ ধরনের অর্থপূর্ণ সিগন্যালগুলি এক্সট্রাটেরেস্ট্রিয়াল সভ্যতার প্রমাণ কিনা তা এখনই দ্ব্যর্থহীন ভাবে বলাটা খুব বেশি তাড়াতাড়ি হয়ে যায়।  বিশেষ কোনো দাবির জন্য বিশেষ প্রমাণ প্রয়োজন।

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক
সাম্প্রতিক ডেস্ক