ধারণা করা হচ্ছে, আচমকা বাজি এবং পটকার শব্দ এবং আলোর কারণেই এসব পাখি মারা গেছে।

নিষিদ্ধ ঘোষণা করার পরও এবারের ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে ইতালির রাজধানী রোমে আতশবাজি ফাটানো হয়েছে।

যার ফলে রোমের রাস্তায় শত শত পাখির মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে।

এসব পাখির মধ্যে বেশিরভাগই স্টার্লিং বা ময়না প্রজাতির পাখি। ঠিক কীভাবে এসব পাখির মৃত্যু হলো, সে সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

তবে ‘ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর দ্যা প্রোটেকশন অফ এনিমালস’ এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যেই এলাকায় ব্যাপক হারে বাজি এবং পটকা ফাটানো হয়েছে, সেখানেই অনেক পাখির বাসা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, আচমকা বাজি এবং পটকার শব্দ এবং আলোর কারণেই এসব পাখি মারা গেছে।

এর আগে রোমের সাধারণ জনগণ, পশুপাখি এবং ঐতিহাসিক স্থাপনা সুরক্ষার উদ্দেশ্যে আতশবাজি ফাটানো নিষিদ্ধ করা হয়।