ইতালির শিক্ষা, বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা মন্ত্রী লরেনজো ফিওরামোন্তি

নতুন প্রজন্মকে জলবায়ুর পরিবর্তন সম্পর্কে সঠিকভাবে জানানোর জন্যে গুরুত্বপূর্ণ একটা উদ্যোগ হাতে নিয়েছে ইতালি সরকার। আগামি বছর, অর্থাৎ ২০২০ শিক্ষাবর্ষ থেকে দেশটির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিতে জলবায়ু আর এর প্রভাব সম্পর্কে শিখানো বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

ইতালির শিক্ষামন্ত্রী লরেনজো ফিওরামোন্তি এ সম্পর্কে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন। মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, জলবায়ু সম্পর্কে বছরে ৩৩ ঘণ্টার পাঠ্যসূচি বাধ্যতামূলক করা হবে।

পরিবেশ বিষয়ে সচেতনতা সম্পর্কে সারাবিশ্বের তরুণ প্রজন্ম দিন দিন সোচ্চার হচ্ছে। বিশ্বব্যাপী পরিবেশবাদী আন্দোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছেন গ্রেটা থানবার্গ। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ইটালির পরবর্তী প্রজন্ম এই উদ্যোগের ফলে পরিবেশ সম্পর্কে আরো বেশি সচেতন হবে। সাম্প্রতিক সময়ে জলবায়ু সম্পর্কে ইতালি সরকারের অনেকগুলি উদ্যোগের মধ্যে এটা একটা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আজকের শিশুরা ভবিষ্যতের পৃথিবীতে বসবাস করবে। তাই জলবায়ুর প্রভাব সম্পর্কে জানাটা তাদের জন্যে জরুরি। সে কারণে বিদ্যমান সামাজিক শিক্ষার ক্লাসগুলিতে নির্দিষ্ট সময়ের জন্যে পরিবেশ সম্পর্কে শেখানো বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। এছাড়াও গণিত, ভূগোল বা রসায়নের মত জলবায়ু পরিবর্তনও একটা আলাদা সাবজেক্ট হিসাবে শিখানো হবে।

এই প্রজেক্ট পরিচালনার জন্যে মন্ত্রণালয় থেকে বিজ্ঞানি আর বিশেষজ্ঞদের একটি প্যানেল ঘোষণা করা হয়েছে। যাদের মধ্যে রয়েছেন কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জেফরি স্যাকস আর বিখ্যাত আমেরিকান গবেষক জেরেমি রিফকিন।

শিক্ষামন্ত্রী লরেনজো ফিওরামোন্তি এই বিষয়ে বলেন, “ইতালির শিক্ষাব্যবস্থাকে আমি এমন জায়গায় নিয়ে যেতে চাই, যেখানে পরিবেশ আর সমাজকে কেন্দ্র করেই স্কুলের অন্যান্য বিষয়গুলি শেখানো হবে।”

বর্তমানে সারাবিশ্বে চলতে থাকা তরুণদের পরিবেশবাদী আন্দোলনে লরেনজো ফিওরামোন্তির সমর্থন আছে বলে মনে করা হয়। সম্প্রতি চিনিজাত খাদ্যপণ্য, বিমানের টিকিট আর প্লাস্টিক সামগ্রীর ওপর ট্যাক্স বসানো বিষয়ে ইতালির মন্ত্রীসভায় তিনি প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এজন্যে বিভিন্ন মহলে তার সমালোচনাও হয়েছে। বর্ধিত ট্যাক্সের অর্থ তিনি শিক্ষাখাতে বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব করেছিলেন।

Recommended Posts

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *