‘বসো’, বললেন আপনার কুকুরকে—সুবোধ হলে সেও কিন্তু মেঝেতে বসবে। অচেনা কেউ, কিংবা ভারি কর্কশ স্বরে কেউ যদি তাকে বসতে বলতো তবে কি বসতো সে? নতুন এক গবেষণা বলছে, বসতো। গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, মানুষের মতোই কুকুরও মুখের কথা বুঝতে পারে।

“এটা সত্যি এবং বেশ মজার এক আবিষ্কার” বললেন জীব-জন্তুদের যোগাযোগ বিষয়ে বিশেষজ্ঞ টাকুমশেহ ফিটস। তিনি ভিয়েনা বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ করেন এবং এই গবেষণার সাথে যুক্ত ছিলেন না।

মানুষের লিঙ্গ, বয়স এমনকি সামাজিক অবস্থান অনুযায়ী শব্দের উচ্চারণ আলাদা হয়। উচ্চারণ এবং বাচন ভঙ্গির ভিন্নতা ছেঁটে ফেলে কথা বুঝতে আমাদের সাহায্য করে অজানা এক স্নায়বিক কৌশল। মানুষই কেবল স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজে থেকে করতে পারে এটা। প্রাণিদের মধ্যে zebra finches, chinchillas এবং (macaques) শিম্পাঞ্জিকে এটা শেখানো যায়।

যুক্তরাজ্যের ব্রাইটনে ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্সে কর্মরত জীববিজ্ঞানী হলি রুট-গাটারিজ এবং তার সহকর্মীরা এক গবেষণায় দেখেছেন যে, দূরে কোথাও কুকুরের ডাক শুনে ওটা যে কুকুরের ডাক—কুকুরেরা সেটা বুঝতে পারে।  অচেনা নানা বয়সী নানা রকম উচ্চারণে নারী-পুরুষের গলায় ধারণ করা আদেশমূলক নয়, একই রকম শুনতে কিছু শব্দ যেমন “had,” “hid,” এবং “who’d” স্পিকারে বাজিয়ে শোনানো হয়েছিল বেশ কিছু কুকুরকে। মনিবের পাশে বসে এই শব্দ  স্পিকারে শোনার সময় কী করছিল—বিয়াল্লিশটি কুকুরের সেই ছবি ক্যামেরায় ধারণ করা হয়েছিল।

স্বরবর্ণ উচ্চারণে সামান্য রকমফের হলে কান খাড়া করে ওই শব্দ শুনতে দেখা গেছে কুকুরদের। উচ্চারণ পরিবর্তনে স্পিকারের কাছে এগিয়ে গিয়েও সেটা শুনতে দেখা গেছে তাদের। গবেষকরা বলছেন, এতে প্রমাণ হয় যে শব্দের পরিবর্তনটা কুকুরেরা ধরতে পেরেছে।

ধারণ করা ভিডিওতে দেখা গেছে, ম্যাক্স নামের একটি কুকুর নারীকণ্ঠে “had” শব্দটি শোনার সাথে সাথে ফিরে তাকায় এবং মনোযোগ দিয়ে শুনতে থাকে। কিন্তু ওই একই শব্দ অন্য নারীদের কণ্ঠে ভিন্ন উচ্চারণে কয়েকবার শোনানো হলেও ওতে আর তার আগ্রহ দেখা যায় না। কারণ সে বুঝতে পারে, সবাই আসলে একই কথা বলছে। আবার যখন স্পিকারে নতুন শব্দ যেমন “who’d,” শোনানো হয় তখন কিন্তু ম্যক্সকে সেটা আগ্রহ নিয়ে শুনতে দেখা যায়। কিন্তু ওই একই শব্দ অন্যদের কণ্ঠে শোনার সময় তার আগ্রহে ভাটা পড়তে দেখা গেছে। গবেষকদল লিখেছেন, এতে বোঝা যায়, বক্তা যে-ই হউক না কেন শব্দ বুঝতে পারে কুকুরেরা এবং এরজন্য তাদের কোনো ট্রেনিং দরকার হয় না।

নিউ ইয়র্ক সিটির বার্নার্ড কলেজে কর্মরত কুকুরের আচরণ বিষয়ক গবেষক আলেকজান্দ্রা হরোউয়িচ বলেন, “আদেশ বা অনুরোধমূলক নয় এমন শব্দে কুকুরের প্রতিক্রিয়া দেখার এই গবেষণাটি খুবই ভালো হয়েছে।” এখানে উল্লেখ্য, আলেকজান্দ্রা এই গবেষণায় যুক্ত ছিলেন না। তিনি আরো বলেন, কুকুরেরা শব্দটি বুঝতে পেরেছিল কিনা সেটা অবশ্য আমরা এই রকম গবেষণায় জানতে পারিনি। কিন্তু এটা পরিষ্কার যে, “কুকুরেরা আমাদের কথা শোনে।”এমনকি “আমরা যখন তাদের উদ্দেশ্যে কোনো কথা বলি না” তখনও তারা সেটা শুনতে পায়।

Write A Comment