এফবিআই চ্যাপলিনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দীর্ঘ ৫ বছর ধরে অপেক্ষা করছিল।

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা চার্লি চ্যাপলিনকেও নিষিদ্ধ করেছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র!

১৯৫২ সালে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই চার্লি চ্যাপলিনের বিরুদ্ধে কমিউনিজমের প্রতি সমর্থনের অভিযোগ আনে। এবং পুঁজিবাদ, ব্যক্তিগত অস্ত্রের বিরুদ্ধে কথা বলা এবং সোভিয়েত ইউনিয়নের কর্মকর্তাদের পরিচালিত গোপন সভায় যোগ দেয়ার অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রে তার প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়।

তবে ১৯৭২ সালে চ্যাপলিন যখন অনিচ্ছা সত্ত্বেও তার সম্মানসূচক একাডেমি অ্যাওয়ার্ড গ্রহণের জন্য ২০ বছর পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেন তখন গালা ইভেন্টে তাকে ১২ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে করতালি দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় উপস্থিত জনতা। যা ইতিহাসে খুবই বিরল ঘটনা।

বিশ্বজুড়ে কোটি কোটি মানুষ ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত এই অভিনেতাকে পছন্দ করতেন। নির্বাক চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে তিনি আমেরিকানদের মধ্যেও বেশ জনপ্রিয় ছিলেন। তার কিংবদন্তী কর্মজীবন এবং ৪০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করা সত্ত্বেও এফবিআই তার পিছু লেগেছিল। যার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে তার প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

১৯৪৭ সাল থেকে চ্যাপলিন সোভিয়েত কূটনীতিকদের আয়োজিত কিছু সামাজিক সমাবেশে অংশ নেয়া এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে আরও ভাল সম্পর্কের প্রতি তার সমর্থন জানানোর কারণে এফবিআইয়ের নজরদারিতে ছিলেন। এফবিআই চ্যাপলিনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দীর্ঘ ৫ বছর ধরে অপেক্ষা করছিল।

১৯৫২ সালে লাইমলাইট সিনেমাটির প্রচারের জন্য ইউরোপে ভ্রমণ করার সময় এই কিংবদন্তী অভিনেতা খবর পান যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল তার সেদেশে ফিরে যাওয়া নিষিদ্ধ করেছেন।
অ্যাটর্নি জেনারেলের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি ২০ বছর যুক্তরাষ্ট্রে যান নি। অবশেষে ১৯৭২ সালে তিনি তার সম্মানসূচক অস্কার পুরষ্কার নেয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যান। আর দর্শকরা টানা ১২ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে করতালি দিয়ে তাকে সম্মান জানান।

ইউটিউব লিংক: