হলিউড ফিল্ম ডিরেক্টর কুয়েন্টিন ট্যারান্টিনো তার প্রায় সব সিনেমা তৈরি করেছেন প্রযোজক ও পরিবেশক হার্ভি ওয়াইন্সটিনের সাথে। কিন্তু ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে হার্ভির নামে ৫০ জনেরও বেশি মহিলা ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগ করলে তাকে নিজের প্রযোজনা সংস্থা ‘ওয়াইন্সটিন কোম্পানি’ থেকে বহিষ্কার করা হয়। সেই সাথে সোশ্যাল মিডিয়ায় হলিউডের যৌন হয়রানি সংশ্লিষ্ট ঘটনা প্রকাশের উদ্দেশ্যে চালু হয় ক্যাম্পেইন, যার ফলে অভিনেতা কেভিন স্পেসি, কমেডিয়ান লুইস সি.কে এবং পরিচালক ব্রেট র‍্যাটনার একইভাবে অভিযুক্ত হয়েছেন। মিডিয়ায় এই ঘটনাকে ‘ওয়াইন্সটিন ইফেক্ট’ নামে উল্লেখ করা হচ্ছে।

কাজেই ট্যারান্টিনো তার নতুন সিনেমার পরিবেশকের খোঁজে প্রথমবারের মতো অন্যান্য স্টুডিওর কাছে ধরনা দিয়েছেন। তার সিনেমার ডিস্ট্রিবিউটরের দায়িত্ব পাওয়ার জন্য হলিউডের প্রথম সারির স্টুডিওগুলির মাঝে নিলাম ডাকা হয়। কেবল ডিজনী এই নিলামে অংশ নেয় নাই, কারণ তারা ‘আর-রেটেড’ সিনেমা মুক্তি দেয় না। নিলাম শেষে ট্যারান্টিনোর নতুন সিনেমার ডিস্ট্রিবিউটর হিসাবে নিযুক্ত হয়েছে সনি পিকচার্স।

ষাট ও সত্তর দশকের কুখ্যাত খুনী চার্লস ম্যানসনকে নিয়ে বানানো হয়েছে ট্যারান্টিনো’র নতুন সিনেমার গল্প। তবে এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে ম্যানসন থাকবেন না; এখনো পর্যন্ত পাওয়া তথ্যমতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কাহিনি নিয়ে ট্যারান্টিনোর ২০০৯ সালের ছবি ‘ইনগ্লোরিয়াস বাস্টার্ডস’ এর অ্যাডলফ হিটলারের মতো হবে সেই চরিত্রের পরিধি। কাস্টিংয়ের জন্য অস্কারজয়ী অভিনেত্রী জেনিফার লরেন্সের সাথে ট্যারান্টিনোর কথাবার্তা হয়েছিল, এছাড়া দুই পুরুষ কেন্দ্রীয় চরিত্রে লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও, ব্র্যাড পিট কিংবা টম ক্রুজের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। পরিচালক রোমান পোলানস্কির প্রাক্তন স্ত্রী অভিনেত্রী শ্যারন টেইটের চরিত্রে (যাকে চার্লস ম্যানসনের দল হত্যা করেছিল) অস্ট্রেলিয়ান মারগো রবি’র অভিনয় করার কথা রয়েছে। তবে এখনো কোনো কিছু নিশ্চিত করা হয় নি।

অভিনেত্রী মারগো রবি (বামে) এবং শ্যারন টেইট

সনি পিকচার্সের হেড টম রথম্যানের সাথে দীর্ঘ আলোচনার পর কুয়েন্টিন তাদের সাথে কাজ করতে আগ্রহী হয়েছেন। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে কুয়েন্টিন ট্যারান্টিনোর মতো সিনেমা সম্পর্কিত জ্ঞান খুব কম মানুষেরই আছে, তাই এক্ষেত্রে রথম্যানের ফিল্ম হিস্টোরি নিয়ে গভীর ধারণা সনি পিকচার্সের জন্য সহায়ক হয়েছিল। সনির সাথে ট্যারান্টিনোর চুক্তিবদ্ধ হওয়ার খবরটি অনলাইনে ফাঁস হয়ে যাবার পর রথম্যান ইমেইলের মাধ্যমে এর সত্যতা নিশ্চিত করেন।

সনি পিকচার্সের হেড টম রথম্যান

২০১৮ সালের মাঝমাঝিতে এর শুটিং শুরু হবে, আর ২০১৯ সালে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার কথা রয়েছে। এটি হবে ট্যারান্টিনোর ক্যারিয়ারের ৯ নম্বর সিনেমা, তাই এর ওয়ার্কিং টাইটেল ঠিক করা হয়েছে #৯। ১০ টা সিনেমা বানানোর পরই অবসর নিবেন বলে এর আগে জানিয়েছিলেন তিনি।

সূত্র. ডেডলাইন

Recommended Posts

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *