৩৭ কিলোমিটার দীর্ঘ ‘ম্যাজেন্টা লাইন’ নামের রেলপথে যাতায়াত শুরু করেছে চালকবিহীন এই ট্রেন।

গত সোমবার দিল্লী মেট্রোর ম্যাজেন্টা লাইনে যাত্রা শুরু করেছে ভারতের প্রথম চালকবিহীন ট্রেন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উদ্বোধন করার পরে ট্রেনটি জনকপুরী পশ্চিম স্টেশন থেকে বোটানিকাল গার্ডেন স্টেশন পর্যন্ত এর প্রথম যাত্রা সম্পন্ন করে।

বিশেষ এই রেলসেবা উদ্বোধন করার আগে সেদিনই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজধানীর এয়ারপোর্ট এক্সপ্রেস লাইনে ‘ন্যাশনাল কমন মোবিলিটি কার্ড’ নামের এরেকটি পরিষেবা উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী মোদী।

দিল্লী মেট্রো রেল কর্পোরেশন নির্মিত ৩৭ কিলোমিটার দীর্ঘ ‘ম্যাজেন্টা লাইন’ নামের রেলপথে যাতায়াত শুরু করেছে চালকবিহীন এই ট্রেন। এর মাধ্যমে পৃথিবীর উন্নত শহরগুলির মতো নিজেদের রেলব্যবস্থা আধুনিকায়ন করতে সক্ষম হলো দিল্লী।

মোদী তার উদ্বোধনী ভাষণে বলেন, “চালকবিহীন প্রথম এই ট্রেন উদ্বোধনের মাধ্যমেই প্রমাণিত হচ্ছে যে, স্মার্ট সিস্টেম বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে ভারত কতটা এগিয়ে যাচ্ছে। এখন ন্যাশনাল কমন মোবিলিটি কার্ডের মাধ্যমেই দিল্লী মেট্রো’র পরিষেবা নেয়া সম্ভব। কয়েক দশক আগে নগরায়ণের প্রভাব এবং ভবিষ্যৎ নিয়ে দেশের জনগণ অনিশ্চয়তায় ভুগছিল। এখন সেই পরিস্থিতি একেবারেই পাল্টে গেছে।”

এদিকে প্রথমবারের মতো চালকবিহীন ট্রেনে চড়ে যাত্রীদের অনেকেই তাদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। বেশিরভাগ যাত্রীর মতে, তাদের কাছে এই অভিজ্ঞতা সাধারণ মেট্রো ট্রেনে চড়ার মতোই মনে হয়েছে। এশিয়ান নিউজ ইন্টারন্যাশনালকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে অনিল কুমার নামের একজন যাত্রী বলেন, “ঐতিহাসিক এই দিনের অংশ হতে পেরে আমি আনন্দিত। আমি নিশ্চিত যে, এর মাধ্যমে সময় সাশ্রয় হবে আর চালকদের ভুলত্রুটিগুলি এড়ানো সম্ভব হবে। তবে অন্যান্য দিনে ট্রেনে চড়ার অভিজ্ঞতার সাথে আজকের অভিজ্ঞতার তেমন কোনো পার্থক্য আমি খুঁজে পাইনি।”

আরেকজন যাত্রী বলেন, “আমার মনে হয়, ব্যাপারটা খুবই ভালো হয়েছে। আশা করি, অন্যান্য লাইনেও শীঘ্রই এই পরিষেবা চালু করা হবে। প্রযুক্তি যে এতটা এগিয়ে গেছে, সেটা নিজের চোখে দেখতে পারাটাও অসাধারণ একটা অভিজ্ঞতা।”

যাত্রীদের অনেকেই চালকবিহীন প্রযুক্তিতে তৈরি এই ট্রেনের ব্যাপারে জানতেন। তারপরও ম্যাজেন্টা লাইনে যাতায়াত করা অনেক যাত্রী ট্রেনে ওঠার পরও চালকের ব্যাপারটা সেভাবে বুঝে উঠতে পারেননি। গজেন্দ্র মহাপাত্র নামের একজন যাত্রী জানান, ট্রেনে সাংবাদিকদের দেখার আগ পর্যন্ত তিনি বুঝতেই পারেননি যে, এই ট্রেনে কোনো চালক নেই।

অন্যদিকে চালকবিহীন ট্রেনের উদ্বোধন উপলক্ষে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল একটি টুইটের মাধ্যমে দিল্লিবাসীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন। হিন্দি ভাষায় লেখা সেই টুইটে তিনি লেখেন, “আজ থেকে দিল্লী মেট্রোর প্রথম চালকবিহীন স্বয়ংক্রিয় ট্রেন পরিষেবা চালু হলো। আজ আপনাদের ‘দিল্লী মেট্রো’ বিশ্বের বাছা বাছা কয়েকটা শহরের তালিকায় নিজেদের নাম যুক্ত করতে পেরেছে। আমাদের দিল্লী অনেক দ্রুতই এগিয়ে যাচ্ছে।”