ছবিতে দেখা যাচ্ছে পোপ ফ্রান্সিস ইরাকের মোসুলে অবস্থিত একটি ধ্বংসপ্রাপ্ত গির্জা পরিদর্শন করছেন।

গত শুক্রবার পোপ ফ্রান্সিস ইরাকে এক ঐতিহাসিক সফর শুরু করেন। এই সফরের মধ্য দিয়েই দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে প্রথম বার ইরাকে আসলেন পোপ।

দেশটিতে গত ২০ বছরে এক মিলিয়নেরও বেশি খ্রীষ্টান শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছে। পোপ ফ্রান্সিস ইরাকের বৃহত্তম খ্রীষ্টান শহর নিনেভেহ, বাগদাদ, মোসুল এবং কারাকোশে বসবাসরত খ্রীষ্টানদের সাথে দেখা করেছেন।

এছাড়াও তিনি এরবিল শহরে গিয়ে কুর্দি কর্তৃপক্ষ এবং ইরাকের ১,৫০,০০০ খ্রীষ্টান শরণার্থীর মধ্যে কয়েকজনের সাথে দেখা করেছেন।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে পোপ ফ্রান্সিস ইরাকের মোসুলে অবস্থিত একটি ধ্বংসপ্রাপ্ত গির্জা পরিদর্শন করছেন। তিনি গির্জাটির বাইরে যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্রার্থনাও করছিলেন।

পোপ তার সফরে ইরাকের শিয়া মুসলমানদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা পোপ গ্র্যান্ড আয়াতুল্লাহ আলী আল-সিস্তানির সাথে দেখা করতে নাজাফে গিয়েছিলেন। উল্লেখ্য, নাজাফ অঞ্চলের মোট জনসংখ্যার ৭০ শতাংশই  শিয়া মুসলিম।

সূত্র. আল জাজিরা