২০১৫ সালে, প্রায় ৩০ বছর সাজা খাটার পর প্যারোলে মুক্তি পান তিনি। প্যারোলের শর্ত খুব কড়াকড়ি ছিল…।

১৯৮৫ সালে জোনাথন পোলার্ড, একজন আমেরিকান ইহুদি গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে আটক হন। পরে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আদালত। 

পোলার্ড নেভি ইন্টেলিজেন্স অ্যানালিস্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন, সেসময় নিউইয়র্কে এক ইসরাইলি কর্নেলের সাথে তার পরিচয় হয়, এবং মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে তিনি ৮০০ গোপনীয় নথি এবং ১৫০০ ইন্টেলিজেন্স সামারি ইসরাইলে পাঠিয়েছিলেন। গ্রেফতার হওয়ার আগে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ইসরাইলি দূতাবাসে রাজনৈতিক অ্যাসাইলামের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এই গুপ্তচরবৃত্তির ফলে ফলে যুক্তরাষ্ট্র-ইসরাইল যে ঐতিহাসিক সুসম্পর্ক তার অবনতি ঘটেছিল।

তিনি তার দোষ স্বীকার করে সবরকম সহযোগিতা করার পরও তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল। যদিও তার উকিলদের প্রত্যাশা ছিল দোষ স্বীকার এবং সহযোগিতার কারণে তার শাস্তি কিছুটা কম হবে।    

২০১৫ সালে, প্রায় ৩০ বছর সাজা খাটার পর প্যারোলে মুক্তি পান তিনি। প্যারোলের শর্ত খুব কড়াকড়ি ছিল, যেমন তার সন্ধ্যার পর বাইরে বের হবার অনুমতি ছিল না, হাতে বিশেষ মনিটরিং ডিভাইস লাগাতে হয়েছিল, আর তিনি এমন কোনো কোম্পানিতে কাজ করতে পারবেন না যেখানে মার্কিন সরকারের নজরদারি সফটওয়্যার নেই।

তার পক্ষের আইনজীবীরা তার চাকরির শর্তকে তার জীবিকার অধিকারের পরিপন্থী হিসেবে তুলে ধরেন। এছাড়াও ইসরাইল তার প্যারোলের শর্ত শিথিল করে দেশ ছাড়ার অনুমতি দেয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে চাপ দিচ্ছিল। এর ধারাবাহিকতায় মাঝে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার কাছে তার প্যারোল শিথিল করার আবেদন গেলে হোয়াইট হাউস তৎক্ষণাৎ জানায় পোলার্ডের অপরাধ গুরুতর, এবং প্রেসিডেন্ট তার প্যারোল শর্তকে কোনোভাবেই সহজ করতে ইচ্ছুক না।   

ইসরাইল এবং পোলার্ডের আইনজীবিরা বলতে চান এটা তেমন গুরুতর কিছু নয়, একজন ব্যাক্তি মোটা টাকার বিনিময়ে কিছু তথ্য দিয়েছেন মাত্র। কিন্তু ব্যাপারটা মোটেই নিরীহ ছিল না, তা ২০১২ সালের সিআইএর ডিসক্লাসিফাইড নথির মাধ্যমে জানা যায়। পোলার্ডের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইসরাইল ১৯৮৫ সালে প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের তুনিসের সদরদপ্তরে হামলা করে ৬০ জনকে হত্যা করে। 

৬৬ বছর বয়সী পোলার্ডের কেস পুনঃবিবেচনা করে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ জানায় যে তাদের মনে হচ্ছে না পোলার্ড কোনোভাবে আইন ভঙ্গ করবেন, সুতরাং তাকে দেশ ত্যাগ করে ইসরাইলে যাবার অনুমতি দিয়েছেন তারা।