বানরদের আফ্রিকা থেকে দক্ষিণ আমেরিকায় যাওয়ার ঘটনা ঘটেছিল অন্তত দুইবার

প্রাচীন বানরদের দুটি প্রজাতি ৩ কোটি বছরেরও আগে আফ্রিকা থেকে দক্ষিণ আমেরিকায় গিয়েছিল। তবে তাদের মধ্যে কোন প্রজাতি সেখানে প্রথমে পৌঁছেছিল, সেই সম্পর্কে আমরা এখনো নিশ্চিত নই।

বানরের উৎপত্তি মূলত আফ্রিকাতে। আর মনে করা হয়, আজ থেকে প্রায় ৪ কোটি বছর আগে একদল বানর প্রথম দক্ষিণ আমেরিকায় পৌঁছায়। সে সময়ে এই দুই মহাদেশের দূরত্ব ছিল ১৫০০ থেকে ২০০০ কিলোমিটারের মধ্যে। বর্তমানে যে দূরত্ব, তার প্রায় এক চতুর্থাংশ ছিল সেই সময়ে।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে দুটি প্রজাতির মধ্যে দ্বিতীয় প্রজাতির আফ্রিকান বানরের ফসিল হয়ে যাওয়া দাঁত আবিষ্কৃত হয়েছে। আর নতুন আবিষ্কৃত হওয়া এই জীবাশ্ম বা ফসিলগুলি কিছুটা ভিন্ন গল্প বলে।


লেয়াল লিভারপুল
নিউ সায়েন্টিস্ট, ৯ এপ্রিল ২০২০


ইউনিভার্সিটি অফ সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার এরিক সিফার্ট আর তার সহকর্মীরা ফসিল হয়ে যাওয়া এই দাঁত নিয়ে গবেষণা করেছেন। ফসিলগুলি মূলত পেরুর সান্তা রোসায় আবিষ্কৃত হয়েছে। সিফার্ট বলেন, এই আবিষ্কার এত রোমাঞ্চকর ছিল যে আমি খুবই এক্সাইটেড হয়ে গিয়েছিলাম।

তিনি এবং তার সহকর্মীরা ফসিল হয়ে যাওয়া চারটি দাঁত বিশ্লেষণ করেন। তারা আবিষ্কার করেন, দাঁতগুলির আকৃতি এতদিন ধরে জেনে আসা দক্ষিণ আমেরিকার ‘প্লাটিরাইন’ নামের একমাত্র প্রাচীন প্রজাতির বানরের সাথে মেলে না। বরং দাঁতগুলির সাথে ‘প্যারাপিথেসিড’ নামের আফ্রিকান বানরের বিলুপ্ত একটি প্রজাতির দাঁতের সাদৃশ্য রয়েছে।

সিফার্ট জানান, স্তন্যপায়ী প্রাণিদের দাঁতের আকার অত্যন্ত বৈচিত্র্যময়। তাই জীবাশ্মবিদদের কাছে এসব প্রায় আঙুলের ছাপের মতোই যা দিয়ে অনেক সময় শুধুমাত্র একটা দাঁত অথবা এমনকি দাঁতের একটা অংশ থেকেও বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণিদের শনাক্ত করা যায়।

সিফার্টের মতে, বানরগুলি যদি আসলেই এই প্রজাতির হয়ে থাকে, তাহলে দক্ষিণ আমেরিকায় প্রথমবারের মত ‘প্যারাপিথেসিড’ প্রজাতির প্রাণির জীবাশ্ম বা ফসিল আবিষ্কৃত হয়েছে। এর ফলে আমরা ধারণা করতে পারি, শুধুমাত্র ‘প্লাটিরাইন’ প্রজাতির বানরদের পূর্বপুরুষই আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দেয়নি।

বানরের দুটি প্রজাতিই ভাসমান উদ্ভিদের কোনো বিশাল ভেলায় চড়ে সমুদ্র পাড়ি দিয়েছিল বলে মনে করা হচ্ছে। ফসিল ডেটিং-এর মাধ্যমে যে তথ্য পাওয়া গেছে, তা থেকে ধারণা করা যায়, বানরের দ্বিতীয় প্রজাতিটি ৩ কোটি ২০ লক্ষ থেকে সাড়ে ৩ কোটি বছর আগে আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিতে সফল হয়েছিল। ইতিহাসের ঠিক এই সময়টায় সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমে গিয়েছিল। ধারণা করা হচ্ছে, এর ফলেই প্রাণিগুলি অপেক্ষাকৃত কম সময়ের মধ্যে সহজে সমুদ্র পাড়ি দিতে পেরেছিল।

গবেষক দলটি অনুমান করছে, প্রজাতি দুটি সাড়ে ১১ মিলিয়ন বা ১ কোটি ১৫ লক্ষ বছর ধরে একই সাথে বসবাস করেছে। তবে কোন দলটি প্রথমে সমুদ্র অতিক্রম করেছে, তা এখনো পরিষ্কার নয়।

সিফার্ট জানান, ‘প্লাটিরাইন’ প্রজাতির সবচেয়ে পুরনো জীবাশ্ম বা ফসিলটি প্রায় ৩৪ মিলিয়ন বা ৩ কোটি ৪০ লক্ষ বছর আগের। তবে আগে যেমনটা মনে করা হচ্ছিল, ফসিলটির বয়স তার চাইতে কম আর নতুন আবিষ্কৃত হওয়া ‘প্যারাপিথেসিড’ ফসিলের বয়সের কাছাকাছি।

সিফার্ট বলেন, (দক্ষিণ আমেরিকায়) প্লাটিরাইন প্রজাতিটা প্যারাপিথেসিড প্রজাতির বানরের আগে এসেছিল বলে ভাবার কোনো কারণ নেই। বরং দুটি প্রজাতি প্রায় একই সময়ে এসে থাকতে পারে।

অনুবাদ. ফারহান মাসউদ