এখনকার দিনে খুব অল্পতেই আমাদের মনোযোগ নষ্ট হয়।

আমাদের সেলফোনগুলি যন্ত্র হিসেবে অসাধারণ হলেও বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নোটিফিকেশন, বন্ধু-বান্ধব, পরিবার বা কর্মক্ষেত্র থেকে আসা ম্যাসেজ দিয়ে এটি মনোযোগ নষ্ট করে। এমন অবস্থায় মানসিক চাপ বোধ করা বা বিরক্ত হয়ে পড়া স্বাভাবিক, যেহেতু কোনো কাজই আপনি শেষ করতে পারবেন না।

হিউগো গার্নসব্যাক (১৮৮৪-১৯৬৭)

১৯২০ এর দিকে মানুষ বোধহয় তাদের সময়ের চাইতে একটু বেশি এগিয়ে ছিল। অজস্র কনটেন্টে ভর্তি টেলিভিশন এবং সামাজিক মাধ্যম বা সোশ্যাল মিডিয়াতে মানুষজন আসক্ত হওয়ার আগেই তারা জানত মনোযোগ নষ্ট করার মত নানা জিনিসে পৃথিবী পরিপূর্ণ!

১৯২৫ সালে উদ্ভাবক হিউগো গার্নসব্যাক মানুষকে ‘দি আইসোলেটর’ এর সঙ্গে পরিচয় করান।

এই হেলমেটের উদ্দেশ্য ছিল মুখসহ সম্পূর্ণ চেহারা সলিড তুলায় ঢেকে মাথায় আসা সব ধরনের মনোযোগ নষ্টকারী চিন্তাভাবনাকে ব্লক করা।

শ্বাস নেওয়ার জন্যে এর সঙ্গে যুক্ত ছিল অক্সিজেন ট্যাংক। হেলমেটটির চোখের অংশের ওপর ছোট কাঁচের টুকরো বসানো ছিল যাতে করে সবকিছু ঠিকমত দেখতে পারা যায়।

নিচের ছবিতে দেখা যাচ্ছে কীভাবে টিউব দিয়ে হেলমেটে অক্সিজেন প্রবেশ করে।

১৯২৫ সালে ‘সায়েন্স অ্যান্ড ইনভেনশন’ নামের একটি সাইন্স ফিকশন ম্যাগাজিনের কাভারে ‘আইসোলেটর’ এর একটি ছবি প্রকাশিত হয়।

১৯২৫ সালের ‘সায়েন্স অ্যান্ড ইনভেনশন’ ম্যাগাজিনের কাভার

বিজ্ঞানীদের জন্য আইডিয়াটি পুনরুদ্ধার করার উপযুক্ত সময় এসে গেছে।

সূত্র. canyouactually
অনুবাদ. লুবনা ফেরদৌস প্রমা

Write A Comment