উদ্ভাবক জো ল্যান্ডোলিনা বলেন, রক্তপাত বন্ধ করার ব্যাপারে ৫ মিনিট আর ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে যে পার্থক্য তা জীবন আর মৃত্যুর পার্থক্য।

ব্রুকলিনের ছোট একটি ল্যাবরেটরিতে টেকনিশিয়ানরা এমন একটি জেলের উপর কাজ করছেন যেটি ২০ সেকেন্ডে রক্তপাত বন্ধ করতে পারে।

উদ্ভিদ থেকে তৈরি একধরনের পলিমার দিয়ে বানানো এই জেল তাৎক্ষণিকভাবে রক্তকণিকাকে জমাট বাঁধিয়ে ফেলে। সুনেরিস নামে একটি প্রতিষ্ঠান এই জেল তৈরি করেছে।

এই প্রতিষ্ঠানের সিইও এবং সহ-প্রতিষ্ঠাতা জো ল্যান্ডোলিনা নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার সময় এই প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করা শুরু করেছিলেন।

এর আগে তরল বা লিকুইড ব্যান্ডেজের আইডিয়া নিয়ে চিন্তা করা হয়েছে, এবং এর মধ্যে কিছু বাজারেও এসেছে। কিন্তু এই ব্যান্ডেজগুলি শুধু ত্বকের ওপরের অংশেই কাজে লাগে। গুলির আঘাত বা অপারেশনের সময় ভিতরের কোনো প্রত্যঙ্গ কেটে গেলে এগুলি কাজ করে না।

জো ল্যান্ডোলিনা
জো ল্যান্ডোলিনা

জো ল্যান্ডোলিনা বড় ধরনের কিছু করার চিন্তা করছেন। তার আইডিয়া হল উদ্ভিদ থেকে তৈরি পলিমার ব্যবহার করে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে রক্তপাত বন্ধ করা। তিনি পরীক্ষা করে দেখেছেন, পলিমারের একসাথে জমাট বাঁধার ক্ষমতা আছে এবং বড় ধরনের ক্ষত থেকেও খুব দ্রুত রক্তপাত থামানোর জন্য এই পলিমার রক্তের স্বাভাবিক তঞ্চন প্রক্রিয়াকে সক্রিয় রাখতে পারে। উদ্ভাবক জো ল্যান্ডোলিনা বলেন, রক্তপাত বন্ধ করার ব্যাপারে ৫ মিনিট আর ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে যে পার্থক্য তা জীবন আর মৃত্যুর পার্থক্য।

নতুন চিকিৎসা সামগ্রীর জন্য অনুমোদন পাওয়া একটি ধীরগতির প্রক্রিয়া। সামনের বছরগুলিতে যেহেতু বায়োমেডিকেল কোম্পানির প্রচুর চাহিদা রয়েছে, ল্যান্ডোলিনার কোম্পানি সুনেরিস এটির মাধ্যমে বেশ ভাল অর্থ আয় করতে পারবে।


VetiGel: The Band-Aid of the Future Stops Bleeding Instantly

ভেটিজেল নামের এই পণ্যটি এরমধ্যেই পশু ক্লিনিকগুলিতে পশুর চিকিৎসায় ব্যবহারের জন্য চালু হতে যাচ্ছে। সুনেরিস বলছে, প্রয়োগ করার সাথে সাথে আমাদের জেলটি ক্ষতিগ্রস্ত রক্তনালীতে চাপ দিয়ে রক্ত তঞ্চন প্রক্রিয়ার গতি বাড়িয়ে দেয়। এরপর জেলটি রক্তকণিকাগুলিকে দ্রুত জমাট বাঁধিয়ে ফেলে, এর ফলে আহত স্থানে রক্তকণিকাগুলি জমাটবদ্ধ হয়। আমাদের জেলটি খুব দ্রুত রক্ত তঞ্চনকারী ফিবরিন প্রোটিনকে জমাট বাঁধিয়ে জমাটবদ্ধ রক্তকণিকা তৈরি করে। এর ফলে রক্ত জমাট বেঁধে একটি দৃঢ় ক্লটে বা জমাটবদ্ধ দলায় পরিণত হয়।

রক্তের স্বাভাবিক আঠালো বা চিটচিটে ভাবের কারণে এই জেলটি ক্ষতস্থানে কোনো চাপ ছাড়াই থাকতে পারে। ফলে যেসকল আহত রোগী বুঝতে পারে না কেন তাদের স্থির হয়ে থাকা উচিৎ তাদের জন্য এটি বিশেষভাবে কার্যকরী।

জো ল্যান্ডোলিনা বলেন, আমাদের লক্ষ্য হল প্রতিটি অ্যাম্বুলেন্সে, প্রত্যেক সৈন্যের বেল্টে এবং প্রতিটি মায়ের পার্সে থাকবে ভেটিজেল।