ডিজনি কোম্পানির চেয়ারম্যান ও সিইও বব আইগারকে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে টাইম ম্যাগাজিন তাদের ‘বিজনেস পারসন অফ দ্য ইয়ার’ ঘোষণা করেছে। সেই উপলক্ষে তাদের সাথে সাক্ষাৎকারে আইগার জানান, ফিল্মমেকার মার্টিন স্করসেজি মার্ভেলের সুপারহিরো সিনেমা নিয়ে যেসব মন্তব্য করেছেন সেগুলি রীতিমতো “নোংরা” এবং “যারা এসব মুভি বানান তাদের জন্য এমন মন্তব্য মোটেও ফেয়ার না।”

বিষয়টা শুরু হয় যখন স্করসেজি ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে মার্ভেলের সুপারহিরো ঘরানার মুভিগুলিকে থিম পার্ক রাইডের সঙ্গে তুলনা করেন। এম্পায়ার ম্যাগাজিনের সাথে এক ইন্টারভিউতে স্করসেজি বলেন, এসব সুপারহিরো মুভি “আসল সিনেমা না।” পরে নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকায় একটি আর্টিকেল লিখে তিনি আরো ব্যাখ্যা করে বলেন যে, এসব সুপারহিরো সিরিজ দিয়ে মার্ভেল যেভাবে ইন্ডাস্ট্রি দখল করে নিচ্ছে তা আসলে “আর্টের জন্য প্রতিকূল ও নিষ্ঠুর” এক পরিবেশ তৈরি করছে।

মার্টিন স্করসেজি

পরবর্তীতে গডফাদার সিরিজের ডিরেক্টর ফ্রান্সিস ফোর্ড কপোলাও স্করসেজিকে সমর্থন দিলে বিষয়টা আরো সামনে চলে আসে। ফ্রান্সের লিয়নে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপের সময় তিনি বলেন, “মার্টিন তো দয়াই করেছে, যখন সে বলেছে যে এগুলি আসলে কোনো সিনেমা না। সে তো এগুলিকে জঘন্য বলে নাই, যেটা আমি বলছি।”

পড়ুন >> তরুণ প্রজন্ম ধরে নিচ্ছে মার্ভেলের মুভিগুলিই আসল সিনেমা—এটা মোটেও উচিত না: স্করসেজি

এরপর থেকে পৃথিবীজুড়ে ফিল্মমেকারদের সাথে আলোচনায় প্রায়ই সুপারহিরো সিনেমা নিয়ে স্করসেজি’র মন্তব্যগুলির প্রেক্ষিতে অন্যান্য মুভি ডিরেক্টরদের মতামত জানতে চাওয়া হয়৷ এতে কেউ কেউ যেমন স্করসেজিকে সাপোর্ট করেছেন (যেমন ব্রিটিশ পরিচালক কেন লোচ), তেমনি অনেকে তার কথাগুলিকে “উদ্ধত” বলে তার বিরোধিতাও করেছেন (যাদের মধ্যে আছেন ম্যাড ম্যাক্স সিরিজের জন্য বিখ্যাত পরিচালক জর্জ মিলার)।

কেন লোচ: “[মার্ভেল মুভিগুলি] আসলে হ্যামবার্গারের মতো পণ্য হিসাবে বানানো হয়।… একটা বড় কর্পোরশনের জন্য বিশাল অংকের লাভ করবে এমন কোনো প্রোডাক্ট বানানোই তাদের উদ্দেশ্য। এগুলি একেকটা মার্কেট এক্সারসাইজ। সিনেমার আর্টের সাথে এর কোনো সম্পর্ক নাই।”
জর্জ মিলার: “কোনো মুভি বক্স অফিসে ভালো কামাই করছে বলে সেটাকে কেবল দক্ষ মার্কেটিং বা অন্য কিছু বলে উড়িয়ে দেওয়া ভুল। এধরনের কমেন্ট করা একরকমের ঔদ্ধত্য।”

টাইম’কে বব আইগার জানিয়েছেন, তার টিম মার্টিন স্করসেজির লোকজনের সাথে আলাপ করে একটা গেট-টুগেদারের আয়োজন করতে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, “মার্টিন যদি আর্টিস্টিক রিস্ক নেওয়ার কাজে নিয়োজিত থাকতে চান, তাহলে উনাকে আমার অভিনন্দন। কিন্তু তার মানে এই না যে আমরা যা বানাচ্ছি তা আর্ট নয়।”

পড়ুন >> বব আইগার: স্করসেজি এবং কপোলার ক্লাসিকের চেয়ে মার্ভেলের মুভি কোনো অংশে কম না

টাইম ম্যাগাজিনের সাংবাদিক বেলিন্ডা লাসকোম্ব জানান, যখনই বব আইগারের বিরুদ্ধে এমন কোনো অভিযোগ আনা হয় যে উনি ব্যবসায়ী হিসেবে তেমন ঝুঁকি নিতে চান না, তখনই তিনি মার্ভেলের সিনেমা “ব্ল্যাক প্যান্থার” এর প্রসঙ্গ তোলেন। অস্কারের সেরা সিনেমার ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পাওয়া প্রথম এই মার্ভেল মুভিকে আইগার তার ক্যারিয়ারের সেরা পাঁচটি অর্জনের একটি মনে করেন। এর আগে অক্টোবর মাসে তিনি বলেছিলেন, “আপনারা কি বলতে চাচ্ছেন যে রায়ান কুগলার যখন ব্ল্যাক প্যান্থার এর মতো মুভি বানান, সেটা স্করসেজি বা কপোলার নিজেদের সিনেমায় কাজ করার চাইতে কোনো দিক দিয়ে কম? কাম অন!”

সূত্র. টাইম

Recommended Posts

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *