যুক্তরাষ্ট্রে লা লিগার কোনো ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা বাতিল করে দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ।

লা লিগা কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যেই এই সিজনের খেলা আটলান্টিক পাড়ি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে নিয়ে গেছে। তার প্রেক্ষিতে আগামি জানুয়ারিতে বার্সেলোনার বিপক্ষে জিরোনা’র হোম ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে মায়ামি’র হার্ড রক স্টেডিয়ামে।

এটা হতে যাচ্ছে লা লিগার ইতিহাসে সর্বপ্রথম বিদেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত কোনো ম্যাচ। তবে ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ ঘোষণা দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ বার্সেলোনাকে অনুসরন করবে না। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন তার অধীনে রিয়াল মাদ্রিদ এ ধরনের যে কোনো প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করবে।

রিয়াল মাদ্রিদের জেনারেল অ্যাসেম্বলিতে পেরেজ বলেছেন, আমরা যুক্তরাষ্ট্রে যাব না। আমি জানি না তাদের সাথে আমাদের কীসের সম্পর্ক আছে, আমাদের ক্লাবের সাথেও তাদের সম্পর্ক নেই, আমাদের ভক্তদের সাথেও সম্পর্ক নেই। আমরা সরাসরি প্রত্যাখ্যান করছি।

এই সপ্তাহের শুরুর দিকে লা লিগার প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের টেবাস নিশ্চিত করেছিলেন যে আগামি জানুয়ারিতে মায়ামিতে অনুষ্ঠিতব্য ম্যাচটির ব্যাপারে তিনি এখনো আত্মবিশ্বাসী, যদিও স্প্যানিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন অনুমোদন দেওয়ার আগে আরো কাগজপত্র চেয়েছে।

টেবাস বলেছেন, আমাদের কাছে আরো কাগজপত্র চাওয়া হচ্ছে এবং আমরা সেটা প্রস্তুত করব। আমি সবগুলি বিষয়ে এখনো অনেক আশাবাদী এবং আমাদের দেখতে হবে শেষ পর্যন্ত কী হয়।

রিয়াল মাদ্রিদের স্টেডিয়াম সান্টিয়াগো বার্নাব্যু’র উন্নয়ন কাজের জন্য ৫২৫ মিলিয়ন পাউন্ড খরচের যে কথা উঠেছে সে বিষয় নিয়ে জেনারেল অ্যাসেম্বলিতে কথা বলেছেন পেরেজ।

তিনি বলেছেন, যেটাকে পৃথিবীর সবচেয়ে সেরা স্টেডিয়াম হতে হবে আমরা সেটার ভাগ্য নির্ধারণের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি। আশা করা হচ্ছে ২০১৯ সালে এটার কাজ শুরু হতে পারে এবং এটার আরাম-আয়েশ ও প্রবেশাধিকারের বিষয়গুলি উন্নত করা হবে। ডিজিটাল সান্টিয়াগো বার্নাব্যু তৈরির জন্য এই প্রজেক্টের অন্যতম মৌলিক দিক হবে প্রযুক্তি। এই স্টেডিয়ামের সাথে রিয়াল মাদ্রিদের মিথ এবং কিংবদন্তীগুলি জড়িয়ে আছে, সান্টিয়াগো বার্নাব্যু আমাদের সেই ব্যাপারটা দেখিয়ে দেয়। এই স্টেডিয়ামটা মাদ্রিদকে পৃথিবীর সবচেয়ে সেরা ক্লাব ও শতাব্দীর সেরা ক্লাব হিসেবে পুনরায় প্রতিষ্ঠিত করার জন্য মাদ্রিদের ভবিষ্যৎ এঁকে দিবে।

Recommended Posts

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *