এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাক্টিভিস্ট এবং মিডিয়া ব্যক্তিত্বদের অনেকেই অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করে দেয়ার ব্যাপারে রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অনুরোধ জানিয়েছেন।

বছরের পর বছর ধরে আইনি জটিলতায় আটকে থাকা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের মামলার একটা বড় অধ্যায় শেষ হতে চলেছে।

দীর্ঘদিন ধরে যুক্তরাজ্যের আদালতে ব্যপক আলোচিত সংস্থা উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে আনা গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগের ব্যাপারে শুনানি চলছে।

চূড়ান্ত বিচারের মুখোমুখি হওয়ার জন্যে তাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে হস্তান্তর করা হবে কিনা, সে বিষয়ে ডিসট্রিক্ট জজ ভেনেসা ব্যারাইটসার তার রায় ঘোষণা করবেন আগামি সোমবার। সেদিন সকাল দশটায় লন্ডনের ওল্ড বেইলি আদালতে দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এই রায়টি ঘোষণা করা হবে।

ঘোষণা হওয়ার পরে ব্রিটেনের স্বরাষ্ট্রসচিব প্রীতি প্যাটেল রায়টি পর্যালোচনা করবেন। এরপরে রায়ের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন তিনি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাক্টিভিস্ট এবং মিডিয়া ব্যক্তিত্বদের অনেকেই অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করে দেয়ার ব্যাপারে রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অনুরোধ জানিয়েছেন। যাদের মধ্যে রয়েছেন, অভিনেত্রী পামেলা অ্যান্ডারসন, চাইনিজ আর্টিস্ট আই ওয়েইওই এবং লেখক নোম চমস্কি।