Home ব্লগ ইচ্ছেস্রোত

ইচ্ছেস্রোত

যখন আর কোথাও যাওয়ার নাই, তখন সুখী আপুর কাছে আইসা থাকি, থাকছি আগেও। এবারও তেমন ছিল। আর কোত্থাও আমার যাওয়ার ছিল না।
আমি আবার নীলা আপুর কাছে গেলাম। গিয়া জিজ্ঞেস করলাম, শাহেদ ভাই কি তোমার প্রেমিক?
"আমারে যে হুজুর বাসায় কুরআন শরিফ পড়াইতেন, উনি একদিন জিজ্ঞাসা করলেন, আমি কেন আমার মা’রে মাঝেমধ্যে ‘তুই’ কইরা বলি। আমি তখন বেশ ছোট...।"
কেন প্রথম প্রথম শফিকের সাথে পরিচিত হইতে চাইছিলাম তার কোনো সদুত্তর নাই আমার কাছে। গিটার আর গানের প্রতি আমার বরাবরের দুর্বলতা ছিল...
আমরা দোতলায় থাকতাম। নিচতলায় কুসুম আন্টিরা থাকতেন। আমি ওনারে পছন্দ করতাম না।
একটু পরে কান্না থামায়ে সে আমার কাছে মাথা নিচু করে জানাইল, এই প্রেম তারে আমার করায়ে দিতে হবে।
শুধু বলেছিলাম, "আমার সাথে ওভাবে কথা বললে আমি আবার চলে যাব। আর কক্ষনোই আসব না।" বাবা পেপার থেকে চোখ তুলে তাকাল।
আমি কোনোদিন ইন্টার্নাল সৌন্দর্যবিহীন মানুষের জন্য দয়ামায়া অনুভব করি নাই।
হুট করে যেন সব জলস্রোত উল্টো দিকে বইয়ে দিতে ইচ্ছে হলো। মনের স্রোত শহর আর গ্রামের সন্ধিস্থল থেকে গ্রামে ফিরে যেতে চাইছে।
- Advertisement -